ভারতে করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক। প্রত্যেকদিন হু হু করে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। প্রত্যেকদিন কার্যত ভাঙছে রেকর্ড। গোটা দেশে প্রত্যেকদিন আক্রান্ত হচ্ছে ২৩ হাজার, ২৪ হাজার করে মানুষ। বিশ্বের তাবড় তাবড় দেশকে পিছনে ফেলে করোনা আক্রান্তের নিরিখের বিশ্বের তিন নম্বরে রয়েছে ভারত। সংক্রমণ থামার কোনও লক্ষ্মণই নেই। এই পরিস্থিতিতে উদ্বিগ্ন খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আর সেই কারণে জরুরি বৈঠকে বসলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

মূলত করোনা পরিস্থিতি পর্যালোচনা করতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবধনের সঙ্গে বৈঠক করছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এছাড়াও বৈঠকে ছিলেন মন্ত্রীসভার সচিব ও অন্যান্য আধিকারিকরাও। মূলত করোনা পরিস্থিতি এই মুহূর্তে কি সেই বিষয়টি বিস্তারিত প্রধানমন্ত্রীকে জানানো হয়। পাশাপাশি আগামিদিনে কীভাবে করোনা মোকাবিলা করা সম্ভব তা নিয়েও আলোচনা হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।

দেশের প্রত্যেকটি রাজ্যে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ চেহারা নিয়েছে। আর সেদিকে তাকিয়ে একের পর এক রাজ্য নতুন করে ফের লকডাউনের পথে হাঁটছে। কড়া লকডাউন পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। নতুন করে দেশে কি ফের লকডাউন হতে পারে, তা নিয়ে ফের জল্পনা তৈরি হয়েছে।

একাংশের মতে, একাধিক রাজ্য নতুন করে লকডাউন ঘোষণা করেছে। সে পথে হেঁটে কি ফের একবার লকডাউন দেশজুড়ে ঘোষণা করতে পারেন প্রধানমন্ত্রী? যদিও এই বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত মোদী সরকার নেয়নি বলেই সূত্রের খবর। এমনকি এদিনের বৈঠকেও সেই অর্থে কিছু আলোচনা হয়নি বলেই জানা যাচ্ছে।

অন্যদিকে, শনিবারের তথ্য অনুসারে, দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়াল ৮ লক্ষ। করোনা আক্রান্তর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮ লক্ষ ২০ হাজার ৯১৬। একদিনে সংক্রমণে ফের নতুন রেকর্ড। গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমিত হয়েছেন মোট ২৭ হাজার ১১৪, মৃত্যু হয়েছে আরও ৫১৯ জনের। মোট করোনা মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২২ হাজার ১২৩। অন্যদিকে বিশ্বে করোনায় মৃত্যুমিছিল অব্যাহত।

এখনও পর্যন্ত সারা বিশ্বে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৫ লক্ষ ৫৯ হাজার ৪৩৮ জনের। আক্রান্ত ১ কোটি ২৪ লক্ষ ৫৯ হাজার ৩৬৩ জন। তবে এরই মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৬৮ লক্ষ ৩৪ হাজার ৯৯ জন। আমেরিকার অবস্থা সবচেয়ে ভয়াবহ। ওই দেশে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১ লক্ষ ৩৪ হাজার ৫৯ জনের।

আক্রান্ত ৩১ লক্ষ ৮১ হাজার ৮৪৬। এরপরই রয়েছে ব্রাজিল। ওই দেশে ৭০ হাজার ৩৯৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। সংক্রমিত ১৮ লক্ষ ৮২৭। ব্রিটেনে মৃত ৪৪ হাজার ৭৩৫ জন। আক্রান্ত ২ লক্ষ ৮৯ হাজার ৬৭৮ জন।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ