নয়াদিল্লি:  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে দেখা করতে ইতিমধ্যে দিল্লি পৌঁছে গিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবারই তাঁর সঙ্গে আলোচনায় বসতে চলেছেন মোদী। বিকেল ৪টে থেকে এই বৈঠক শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। রাজ্যের একাধিক দাবিদাওয়া নিয়ে মোদীর কাছে প্রস্তাব রাখতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী।

দিল্লির যাওয়ার আগে কলকাতা বিমানবন্দরে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, ‘আমি তো গোটা বছর কলকাতাতেই থাকি। দিল্লি খুব কম যাই। দিল্লিতে সংসদ, রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী সবাই রয়েছেন। তাই কখনও কখনও রাজ্যের কাজে যেতে হয়। তবে এটা রুটিন কাজ বলেই মন্তব্য করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তবে বিভিন্ন সূত্রে জানা গিয়েছে, বিভিন্ন স্কিম নিয়ে কথা বলতেই দিল্লি গিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
তবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিষয়টি রুটিন কাজ বলে মন্তব্য করলেও মোদী-মমতা বৈঠক নিয়ে ইতিমধ্যে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছে বিরোধীরা। বিরোধী শিবিরের একাংশের অভিযোগ, সিবিআইয়ের হাত থেকে রাজীব কুমারকে বাঁচাতেই মোদী সকাশে মমতা। যদিও বিরোধীদের সমস্ত এহেন অভিযোগ সম্পূর্ণ উড়িয়ে দিয়েছে তৃণমূল নেতৃত্ব। তাঁদের পালটা যুক্তি রাজ্যের দাবি বুঝে নিতেই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বসছেন মুখ্যমন্ত্রী।

শুধু প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গেই বৈঠক করা নয়, দিল্লিতে একাধিক কর্মসূচি রয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর। বিরোধী দলের একাধিক নেতার সঙ্গেও সাক্ষাৎ করতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে কার কার সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর সাক্ষাৎ হতে পারে তা এখনও খোলসা করে কিছুই জানানো হয়নি।

তবে রাজনৈতিকমহলের একাংশের মতে, এর আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ডাকা একাধিক বৈঠক এড়িয়ে গিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনকি সেই সমস্ত বৈঠকে কোনও প্রতিনিধি পর্যন্ত পাঠাননি। সেখানে দাঁড়িয়ে হঠাত করে কেন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের প্রয়োজন পড়ল তা নিয়ে ইতিমধ্যে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন বিরোধীরা।