নয়াদিল্লিঃ  দেশের বহু মানুষ এখনও স্বাস্থ্য পরিষেবার বাইরে। অনেক ক্ষেত্রে টাকার অভাব, আবার অনেক ক্ষেত্রে সরকারি ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যে নুন্যতম পরিষেবা না থাকার ফল ভোগ করতে দেশের মানুষকে। তবে এবার স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় বড়সড় পদক্ষেপ নিতে চলেছে মোদী সরকার। বিশেষ করে দেশের নিম্নবিত্ত মানুষ এবং তার মধ্যম আয়ের মানুষরাও যাতে নুন্যতম স্বাস্থ্য পরিষেবা পান সেজন্যে স্বাস্থ্য বিমা চালু করতে চলেছে সরকার। আয়ুষ্মান ভারতের মতোই মধ্যবিত্তদের জন্য নতুন একটি স্বাস্থ্য বিমা প্রকল্প আনতে চলেছে মোদী সরকার। এমনটাই সূত্রে জানা গিয়েছে। জানা যাচ্ছে, এই প্রকল্পে অসংখ্য সাধারণ মানুষ উপকৃত হবেন।

জানা যাচ্ছে ইতিমধ্যে এই বিষয়ে কাজ শুরু করে দিয়েছে নীতি আয়োগ। প্রকল্পের নাম দেওয়া হয়েছে ‘হেলথ সিস্টেম ফর নিউ ইন্ডিয়া’। দেশের একটা বিশাল অংশ মধ্যবিত্ত সমাজের। কিন্তু এই সমাজের মানুষ সর্বক্ষেত্রে বিশেষ চাপে থাকে। অর্থনীতি অবস্থা থেকে বিভিন্ন ক্ষেত্রে এই সমাজের বিশাল একটা মানুষ উপেক্ষিত থাকে। দেশের মধ্যবিত্তের মানুষদের জন্যে সরকারের কোনও স্বাস্থ্য বিমা নেই। ক্ষমতায় আসার পরে বিশ্বের সবচেয়ে বড় স্বাস্থ্য বিমা প্রকল্প আয়ূষ্মান ভারত চালু করেছিলেন নরেন্দ্র মোদী। নিম্ন আয়ের মানুষ বিশাল এই স্বাস্থ্য বিমার সুবিধা ভোগ করেন। কিন্তু মধ্যবিত্তের মানুষেরা এই বিমার সুবিধা পান না।

তবে সূত্র অনুযায়ী ‘হেলথ সিস্টেম ফর নিউ ইন্ডিয়া’ প্রকল্পের আওতায় আসবেন দেশের ৫০ শতাংশ মধ্যবিত্ত। এমনটাই আশা মোদী সরকারের। প্রকল্পটি চালু হলে মাত্র ২০০-৩০০ টাকা প্রিমিয়ামে মধ্যবিত্তরা দারুণ একটা চিকিত্সার সুবিধা পাবেন। ভালো ভালো হাসপাতালে এর আতায় চিকিৎসা পাবেন সাধারণ মানুষ, এমনটাই সূত্রে জানা গিয়েছে।

সূত্র জানাচ্ছে, গোটা দেশজুড়ে নীতি আয়োগের তরফে চালানো এক সমীক্ষা অনুযায়ী দেশের ৪০ শতাংশ গরীব মানুষ এই আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পের সুবিধে পাচ্ছেন। ২০২২ সালের মধ্যে গোটা দেশে ১.৫ লাখ হেলথ অ্যান্ড ওয়েলনেস সেন্টার খোলার পরিকল্পনা রয়েছে মোদী সরকারের। ডায়াবেটিস থেকে ক্যানসারের চিকিত্সা মিলবে এইসব সেন্টারে।