নয়াদিল্লি: ”একজন ভারতীয় হিসেবে আমি নরেন্দ্র মোদীকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে চাই না।” এভাবেই মোদীর বিরুদ্ধে মুখ খুললেন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন। তিনি আরও অভিযোগ করে বলেন, মোদী সরকার শিক্ষাক্ষেত্রে হস্তক্ষেপ করছে।

মঙ্গলবার এক বৈদ্যুতিন মাধ্যমে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে তিনি বলেন, কেন্দ্রীয় সরকার দেশের ইন্সটিটিউট গুলিতে হস্তক্ষেপ করছে। নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়া প্রসঙ্গে একথা বলেন তিনি। অমর্ত্য সেন জানিয়েছেন, বোর্ডের কিছু সদস্য চেয়েছিলেন যে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকুন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়ার কারণ নিয়ে একটি প্রবন্ধও লিখেছেন। আগামী অগাস্ট মাসে তা প্রকাশিত হবে।
গত ফেব্রুয়ারিতে তিনি নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়ের সদস্যপদ ছেড়ে দেন। তঁর অভিযোগ ছিল, সরকার তাঁকে চাইছে না। ১৯৯৮ তে অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার পান অমর্ত্য সেন।

দেশের আরও খবর:

১.সেনা জওয়ানকে খুন করে বাথরুমে পুঁতে রেখেছিলেন স্ত্রী!

২.সিমলায় প্রিয়াঙ্কার ভূসম্পত্তির খতিয়ান এখনই প্রকাশ্যে নয়

৩.বন্ধুত্বের বন্ধন দৃঢ় করতে আস্তানায় নরেন্দ্র মোদী

৪.জেলে অসুস্থ ব্যাপম-কাণ্ডের অন্যতম অভিযুক্ত

৫.মার নয়, এবার জনতার হাতে আটক খোদ পুলিশকর্মী

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।