নয়াদিল্লি: মোদী সরকার শাহিনবাগের আন্দোলনকারীদের সঙ্গে আলোচনায় প্রস্তুত, সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে আন্দোলনকারীদের সব সংশয় দূর করতে সরকার রাজি আছে বলে জানালেন কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবিশংকর প্রসাদ৷ সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে দিল্লির জামিয়া নগরের শাহিনবাগে গত ডিসেম্বরের মাঝামাঝি থেকে চলছে অবস্থান আন্দোলন৷ সিএএ বাতিল না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন আন্দোলনকারীরা৷

শাহিনবাগের আন্দোলন দু’মাসে পড়তে চলেছে৷ সিএএ বাতিলের দাবিতে একটানা আন্দোলন করছেন মহিলারা৷ এর আগে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে কোনও আলোচনায় বসার প্রস্তাবই কেন্দ্রের তরফে দেওয়া হয়নি৷ বরং দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে প্রচারে গিয়ে শাহিনবাগের আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে একের পর এক তোপ দেগে চলেছেন বিজেপির তাবড়া নেতা-মন্ত্রীরা৷ খোদ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহও টিপ্পনি কেটেছেন শাহিনবাগের আন্দোলনকারীদের৷

দিল্লিবাসীর উদ্দেশে প্রচারে এসে শাহ বলেন, ‘আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি দিল্লিতে ইভিএম-এর বোতাম এমনভাবে টিপুন যাতে তার আওয়াজ শাহিনবাগে পৌঁছোয়৷’ দিল্লি বিধানসভা ভোটে বিজেপিকে জেতালে শাহিনবাগের মতো ঘটনা আটকে দেওয়া যাবে বলেও নির্বাচনী প্রচারে জানান অমিত শাহ৷

অমিত শাহের পাশাপাশি শাহিনবাগের আন্দোলনকারীদের তোপ দেগেছেন বিজেপির ছোট-বড়া সব নেতারা৷ কেউ আন্দোলনকারীদের গুলি করে মারার নিদান দিয়ে কমিশনের রোষে পড়েছেন, কেউবা দিল্লিতে ভোটের ফলের দিন শাহিনবাগে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করার হুমকি দিয়েছেন৷ এই প্রথম শাহিনবাগের আন্দোলনকারীদের সঙ্গে আলোচনার প্রস্তাব দিলেন কেন্দ্রের কোনও মন্ত্রী৷ আইনমন্ত্রী রবিশংকর টুইটে লেখেন, ‘নরেন্দ্র মোদীর সরকার শাহিনবাগের আন্দোলনকারীদের সঙ্গে আলোচনায় প্রস্তুত৷ আলোচনা করেই সিএএ নিয়ে আন্দোলনাকারীদের যাবতীয় সংশয় দূর করতে চায় কেন্দ্র৷’ তবে সেই আলোচনা বাস্তবসম্মত ভিত্তিতে হতে হবে বলে টুইটে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী৷