স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: চিনের চলচ্চিত্র উৎসবে যোগ দেওয়ার জন্য তৃণমূল সাংসদ শতাব্দী রায়কে ছাড়পত্র দেয়নি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক৷ কেন চিন যাওয়ার ছাড়পত্র পেলেন না শতাব্দী রায়, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলল তৃণমূল কংগ্রেস।

গত ১৫ থেকে ২০ অক্টোবর চীনের ফুজিয়ান শহরে ‘সিল্ক রোড ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে’ আমন্ত্রণ পেয়েছিলেন শতাব্দী। শতাব্দীর বক্তব্য, বাংলা সিনেমার শতবর্ষ উপলক্ষ্যে ওই ফেস্টিভ্যালে বিশেষ প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছিল৷ তার সাক্ষী থাকতেই তাঁকে আমন্ত্রণ পাঠানো হয়েছিল বলে জানান শতাব্দী।

শতাব্দী বলেন, বিদেশ যাচ্ছি। তাই ভিসার আবেদন করার পাশাপাশি এমপি হিসেবে সরকারকে জানিয়ে যাওয়ার জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে বলি। কিন্তু কয়েকদিন ঝুলিয়ে রেখে ইমেলে জানিয়ে দেওয়া হয়, অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না। এরপরই কেন্দ্রীয় সরকারকে কটাক্ষ করে শতাব্দী বলেন, চিনের রাষ্ট্রপতি ভারতে এসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠক করতে পারেন, আর আমি চিনে যেতে চাইলে আটকানো হল? তাও কোনও কারণ না দেখিয়ে! বিষয়টি নিয়ে তিনি সরাসরি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে জবাব চাইতে যাবেন বলেও জানান।

এব্যাপারে তৃণমূলের সংসদীয় দলের নেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, বিষয়টি মোটেই বাঞ্ছনীয় নয়। একজন সাংসদ কোনও রাজনৈতিক কাজে নয়, স্রেফ চলচ্চিত্র উৎসবে আমন্ত্রণ পেয়েছিলেন। তাহলে কেন যেতে দেওয়া হল না? বিষয়টি লোকসভার জিরো আওয়ারে তোলা হবে। লোকসভায় তৃণমূলের মুখ্যসচেতক তথা আইনজীবী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, বিষয়টি নিয়ে মামলা হওয়া উচিত।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কুনমিং যাওয়ার আমন্ত্রণ জানায় চিন সরকার। প্রথমে কেন্দ্রের তরফে সেই সফরকে সবুজ সংকেত দেওয়া হলেও পরে সেই অনুমতি দেওয়া থেকে সরে আসে কেন্দ্র। সেইসময় তাদের বক্তব্য ছিল, এই বিষয়টির সঙ্গে জাতীয় নিরাপত্তার প্রসঙ্গ জড়িত রয়েছে, তাই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীকে এই ছাড়পত্র দেওয়া হয়নি৷ তবে শতাব্দী রায়কে কেন যাওয়ার ছাড়পত্র দেওয়া হল না, সে ব্যাপারে এখনও কেন্দ্রীয় সরকার কোনও মন্তব্য করেনি৷