স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: গর্ভপাতের সময়ের ঊর্দ্ধসীমা বাড়িয়ে ২০ সপ্তাহ থেকে ২৪ সপ্তাহ করা হল৷ বুধবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর সাংবাদিকদের একথা জানিয়েছেন। এ জন্য মেডিকেল টার্মিনেশন অফ প্রেগনেন্সি (এমটিপি) আইন, ১৯৭১-এ বেশ কিছু রদবদল ঘটাতে চলেছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা।

উল্লেখ্য, বেশ কয়েকটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের পক্ষ থেকে আবেদন করা হয়েছিল, ২০ সপ্তাহ থেকে ২৬ সপ্তাহ করা হোক। কেন্দ্র তাদের দাবিকে অনেকটাই মান্যতা দিল৷ আরও চার সপ্তাহ অর্থাৎ এক মাস বাড়ানো হল গর্ভপাতের সময়সীমা।

এছাড়াও, কেন্দ্র জানিয়েছে গর্ভনিরোধক ওষুধ কাজ না করার কারণে গর্ভসঞ্চার হওয়ায় যদি গর্ভপাতের প্রয়োজন হয়, তবে এবার থেকে ‘যেকোনও মহিলা এবং তাঁর সঙ্গী’ আইনসঙ্গতভাবে তা করতে পারবেন। এতদিন কেবল ‘বিবাহিত মহিলা এবং তাঁর স্বামী’ই ওষুধ কাজ না করার কারণেআইনতভাবে গর্ভপাত করাতে পারতেন।এ ব্যাপারে সাংবাদিক বৈঠকে প্রকাশ জাভড়েকর বলেন, “মহিলাদের শারীরিক বিষয়ে এটি একটি প্রগতিশীল সিদ্ধান্ত।”

গর্ভাবস্থার সময়ে গর্ভবতী মহিলার জীবন ও স্বাস্থ্যের মারাত্মক ঝুঁকি থাকে। যদি গর্ভবতী মহিলার শারীরিক কোনও অসামঞ্জস্যতা থাকে, সেক্ষেত্রে শিশুর জন্মের সময় শারীরিক ও মানসিক অস্বাভাবিকতা দেখা দিতে পারে।কেন্দ্রের তরফে বলা হয়েছে, এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলেই। তাঁদের মতামত এবং বাস্তব পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করেই চার সপ্তাহ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রিসভা। বিলের খসড়াতে এটাই বলা হয়েছে৷ ধর্ষণের শিকার, অত্যাচারিত মহিলাদের ক্ষেত্রেও একই নিয়ম উল্লেখ করা হয়েছে ওই খসড়াতে।