নয়াদিল্লি: চতুর্থ দফার লকডাউন প্রায় শেষের পথে। ৩১ মে শেষ হয়ে যাচ্ছে সেই লকডাউন। নতুন করে লকডাউন বাড়ানো হবে কিনা, সেই প্রসঙ্গে এখনও পর্যন্ত কিছু জানায়নি নয়াদিল্লি। এবার সেই সিদ্ধান্ত নিতেই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বসলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

৭ নম্বর লোক কল্যান মার্গ অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে চলছে বৈঠক। সেই বৈঠকেই লকডাউন সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে সূত্রের খবর। আগেই সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে কথা বলেছেন অমিত শাহ। প্রত্যেক রাজ্যে কী কৌশল নেওয়া হচ্ছে, সেই ব্যাপারে আলোচনা করা হয়েছে।

মন্ত্রিসভার সচিব রাজীব গৌবাও বৈঠক করেছেন।

এদিকে, সংবাদসংস্থা এএনআই-কে গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী প্রমোদ সাওয়ন্ত জানিয়েছেন, অমিত শাহের সঙ্গে তাঁর কথা হয়েছে। আরও ১৫ দিন লকডাউন বাড়তে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি। তবে গোয়ার মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, আরও কিছু ক্ষেত্রে নিয়ম শিথিল করা উচিৎ। সোশ্যাল ডিসট্যান্স বজায় রেখে রেস্তোরাঁ, জিম খুলে দেওয়ার কথাও বলেন তিনি।

এখনও দেশে সর্বাধিক হারে ছড়াচ্ছে করোনা সংক্রমণ। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও। শেষ ২৪ ঘন্টায় দেশে করোনা আক্রান্ত হলেন ৭ হাজার ৪৬৬ জন। যার ফলে দেশে মোট সংক্রামিত ব্যক্তির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১ লক্ষ ৬৫ হাজার ৭৯৯।

মোট আক্রান্তের মধ্যে সেরে উঠেছেন ৭১ হাজার ১০৬ জন মানুষ। মৃত্যু হয়েছে ৪৭০৬ জনের। দেশ চতুর্থ লকডাউনের শেষ সীমায় দাঁড়ালেও লাগাম দেওয়া গেল না সংক্রমণে।

আমেরিকার জন হপকিন্স ইউনিভারসসিটির তথ্য বলছে করোনায় মৃত্যুর বিচারে চিনকেও পিছনে ফেলেছে ভারত। আক্রান্ত হয়েছেন চিনের থেকে প্রায় দ্বিগুণ সংখ্যার মানুষ।

২০১৯ এর ডিসেম্বরে চিনের উহানে শুরু হয়েছিল করোনা সংক্রমণ। এরপর সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে এই মারণ ভাইরাস। সারা বিশ্বে ৫৯ লক্ষেরও বেশি মানুষ এই রোগের কবলে পড়েছেন। বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা সাড়ে ৩ লাখেরও বেশি। তবে গত কয়েকদিনে চিনে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা অনেকটাই কম।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প