স্টাফ রিপোর্টার, কোচবিহার : দিনহাটা কলেজের মৃত ছাত্র অলোক নিতাই দাসের পরিবারকে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠল দিনহাটার তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক উদয়ন গুহের বিরুদ্ধে। তৃণমূল কংগ্রেসের গোষ্ঠী দ্বন্দ্বের জেরে মৃত্যু হয় অলোক নিতাই দাসের৷

মৃত ছাত্রের পরিবারের অভিযোগ সোমবার সকালে উদয়ন গুহ তাঁদের বাড়িতে গিয়ে ছাত্রের বাবা হেমন্ত দাসকে হুমকি দেন৷ চাপ দেওয়া হয় তাঁর অনুগামীদের নাম অভিযোগ পত্র থেকে তুলে নেওয়ার জন্য৷ এই ঘটনার পর এলাকাবাসীরা প্রতিবাদে বলরামপুর রোড অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায়। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছেন বিধায়ক উদয়ন গুহ৷

আরও পড়ুন: এয়ার ইন্ডিয়াকে জ্বালানি সরবরাহ বন্ধ তেল কোম্পানিগুলির

তাঁর দাবি তিনি ওই ছাত্রের বাড়িতে খোঁজ খবর নিতে গিয়ে ছিলেন৷ কিন্তু হুমকি বা অভিযোগ প্রত্যাহার করতে বলেননি৷ এদিনের অবরোধকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়৷ ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ৷ পুলিশ অবরোধ প্রত্যাহারের জন্য এলাকাবাসীকে অনুরোধ করলেও, তাঁদের দাবি থেকে সরেননি এলাকাবাসী৷ তাঁরা অবরোধ চালিয়ে যান।

এদিকে ছাত্র মৃত্যুর ঘটনার প্রতিবাদে আগামী বুধবার ভারতীয় জনতা যুব মোর্চার পক্ষ থেকে কোচবিহার জেলায় ছাত্র ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছে৷ তার আগে মঙ্গলবার কোচবিহারে ধিক্কার মিছিল করবে যুব মোর্চা।

আরও পড়ুন : অরবিন্দ মেননকে নিয়ে চিন্তায় বাংলার বিজেপি

যুব মোর্চার কোচবিহার জেলা সভাপতি সমীর রায় বলেন কোচবিহার জেলায় যে ভাবে একের পর এক কলেজে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব বাড়ছে, তা আশঙ্কার৷ যেভাবে একের পর এক ছাত্রের মৃত্যু হচ্ছে, এর ফলে কলেজগুলির নিরাপত্তা নিয়েই প্রশ্ন উঠছে৷

নিহত ছাত্রের খুনে দোষীদের শাস্তির দাবিতে এবং কলেজ গুলিতে শিক্ষার পরিবেশ ফিরিয়ে নেওয়ার দাবিতে তাঁদের এই ছাত্র ধর্মঘট। উল্লেখ্য গত ৪ঠা অক্টোবর দিনহাটা কলেজে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের গোষ্ঠী দ্বন্দ্বের ফলে গুরুতর আহত হয় কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র ও তৃণমূল ছাত্র পরিষদ কর্মী অলোক নিতাই দাস৷ পরে ৬ অক্টোবর কোচবিহারের একটি বেসরকারি হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়।

স্বামীর সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বস্ত্র ব্যবসাকে অন্যমাত্রা দিয়েছেন।'প্রশ্ন অনেকে'-এ মুখোমুখি দশভূজা স্বর্ণালী কাঞ্জিলাল I