ভাইজাগ: নতুন করে গ্যাস লিক হচ্ছে না। গভীর রাতে যে আতঙ্ক ছড়িয়েছিল, তা কার্যত উড়িয়ে দিলেন বিধায়ক।

এদিন রাতে নতুন করে ধোঁয়া বেরতে দেখা যায়। সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে ছুটে যায় দমকলবাহিনী ও এনডিআরএফ টিম। সেই ছবিও প্রকাশ্যে আসে। তবে ওই ঘটনার পর বিধায়ক গণবাবু সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছে যে, নতুন করে কোনও গ্যাস লিক হয়নি। সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবেই আশেপাশের অঞ্চল খালি করা হচ্ছে। সেখানকার লোকজনকে নিরাপদ জায়গায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই ফের গ্যাস বেরনোর দৃশ্য নজরে আসায় নতুন করে আতঙ্ক ছড়ায়। রাতে ঘটনাস্থলে ছিল ৫০ জন দমকলকর্মী ও এনডিআরএফ টিম। জানা যায়, ২-৩ কিলোমিটারের মধ্যে থাকা গ্রাম খালি করার নির্দেশ দিয়েছে জেলা প্রশাসন।

এদিন সকালে গ্যাস লিক করে এক শিশু সহ মোট ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালে ভর্তি করাতে হয়েছে ২০০ জনকে। যাদের মধ্যে ৮০ জনকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। ২০ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। ইতিমধ্যে ওই সংস্থার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে।

কীভাবে এই ঘটনা ঘটেছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে প্রাথমিক তদন্তে সংস্থার বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে। জানা যাচ্ছে, গ্যাস লিক করেছে ২টি ৫০০০ টন ট্যাঙ্ক থেকে। মার্চ থেকে ট্যাঙ্ক দুটির কোনও দেখভাল করা হয়নি বলে অভিযোগ। এর মধ্যে লকডাউনের কারণে দীর্ঘদিন ধরে কারখানা বন্ধ ছিল। তাই রাসায়নিক বিক্রিয়ার জেরে তাপ উৎপাদন বলে খবর। এরপরেই তা লিক করে সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে বলে পুলিশ সূত্রে জানা যাচ্ছে।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV