নয়াদিল্লি:  ফের ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল মিজোরাম। গত কয়েকদিনে একাধিক বার দেশের এই রাজ্যে কম্পন অনুভূত হয়েছে। আজ রবিবার ফের কম্পন অনুভূত হয়েছে। কম্পন অনুভূত হয়েছে গুজরাটেও। গত কয়েকদিন আগেও ভয়ঙ্কর কম্পনে কেঁপে ওঠে ওই রাজ্য। ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয় সেখানে।

সেই আতঙ্ক বাড়িয়ে ফের কম্পন অনুভূত হয় সেখানে। নতুন করে ফের গুজরাটে কম্পন অনুভূত হওয়াতে তীব্র আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। স্থানীয় মানুষজন আতঙ্কে রীতিমত ছোটাছুটি শুরু করে দেয়।

জানা যাচ্ছে, এদিন বিকেল পাঁচটা ১১ নাগাদ গুজরাতের কচ্ছতে এই কম্পন অনুভূত হয়। স্থানীয় হাওয়া অফিস জানাচ্ছে, কম্পনের উৎপত্তিস্থল ভাচাউ জেলার ১৪ কিমি দূরে। রিখটার স্কেলে কম্পনের মাত্রা ৪.২। হঠাত কম্পনে তীব্র আতঙ্ক তৈরি হয়। রীতিমত ছোটাছুটি শুরু হয়ে যায়।

যদিও এখনও পর্যন্ত হতাহতের কোনও খবর নেই। নেই ক্ষয়ক্ষতির খবর। অন্যদিকে, কম্পন অনুভূত হয়েছে মিজোরামের ছামপাই জেলাতেও। বিকেল ৫টা ২৬ নাগাদ এই কম্পন অনুভূত হয়। মাটি থেকে মাত্র ৭৭ কিমি গভীরে কম্পনের উৎসস্থল বলে জানিয়েছে স্থানীয় হাওয়া অফিস।

গত কয়েকদিনে লাঘাতার কম্পন হয়ে চলেছে মিজোরাম, গুজরাটে। বারবার কম্পন কি কোনও বিপদের আশঙ্কা করা হচ্ছে?

অন্যদিকে, রবিবার সকালে ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে কাশ্মীরের লাদাখের কার্গিল এলাকায়। রিখটার স্কেলে এই ভূকম্পনের মাত্রা ৪.৭। ভারতীয় সময় অনুসারে ভোর ৩ টে ৩৭ মিনিটে এই কম্পন অনুভূত হয়। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, কার্গিল থেকে ৪৩৩ কিমি উত্তর পশ্চিমে এই কম্পন আঘাত হানে।

ন্যাশনাল সেন্টার সিসমোলজি জানাচ্ছে, “ভোর ৩ টে ৩৭ এ ৪.৭ রিখটার স্কেলের মাত্রায় কার্গিল থেকে ৪৩৩ কিমি উত্তর পশ্চিমে এই ভূমিকম্প আঘাত হানে।”

ঘটনায় এখনও কোনও ক্ষয় ক্ষতি বা প্রাণ হানির খবর পাওয়া যায়নি। উল্লেখ্য, এর আগে বৃহস্পতিবারেই ভূ-কম্পনে কেঁপে উঠেছিল লাদাখের কার্গিল। সেদিন রিখটার স্কেলে ম্যাগনিটিউড ছিল ৪.৫।

চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহেই ভূমিকম্পে কেঁপে উঠেছিল দিল্লি। এমনকি অদূর ভবিষ্যতে আরও বড়সড় ভূমিকম্পের বার্তাও দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

প্রশ্ন অনেক: তৃতীয় পর্ব