নয়াদিল্লি: সাধারণ মানুষের কাছে আধার কার্ড এবং প্যান কার্ড অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সকলেই বিভিন্ন প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে এই দুই কার্ড ব্যবহার করে থাকেন। প্যান কার্ড মূলত আয়কর এবং ব্যাংকের বিভিন্ন ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হলেও এই দুই কার্ড অনেক ক্ষেত্রেই নাগরিকত্বের প্রমাণ স্বরূপ ব্যবহার করা হয়ে থাকে। তবে এই দুই কার্ডে নামের বানানে ভুল থাকলে তা যথেষ্ট সমস্যার। কিন্তু সহজ কিছু পদ্ধতির সাহায্যে মেটানো সম্ভব।

প্যান বা permanent account number দেওয়া হয়ে থাকে আয়কর দফতরের তরফে। যা আয়করের ক্ষেত্রে যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। অন্যদিকে আধার নম্বর দেওয়া হয়ে থাকে uidai এর তরফে। এই কার্ড মূলত ব্যাংক টেলিকম কোম্পানি থেকে শুরু করে বিভিন্ন জায়গাতে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এছাড়া এই কার্ড নাগরিকত্বের প্রমাণস্বরূপ ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এছাড়া এই কার্ডের সঙ্গে অন্যান্য পরিষেবা অর্থাৎ ফোন নম্বর, ব্যাংকের account লিঙ্ক করানো বাধ্যতামূলক। নয়ত গ্রাহকদের অসুবিধার মধ্যে পরতে হবে বলে জানানো হয়েছে সরকারের তরফে।

আধার কার্ডে নামের বানান ঠিক করার জন্য গ্রাহকদের স্থানীয় আধার কেন্দ্রে যেতে হবে। গ্রাহকদের aadhar modification form সঠিক ভাবে লিখতে হবে সঠিক তথ্য দিয়ে। পাশপাশি সঠিক নামের বানানের সঙ্গে বাকি প্রামান্য নথি দিতে হবে। প্রার্থীদের ২৫ থেকে ৩০ টাকা খরচ করতে হবে।

অন্যদিকে প্যান কার্ডের ক্ষেত্রে গ্রাহকদের national securities depository limited website ওয়েবসাইটে যেতে হবে। সেখানে গিয়ে গ্রাহকদের correction in existing pan অপশনে ক্লিক করতে হবে। সঠিক নামের সঙ্গে প্রয়জনীত তথ্য দিতে হবে। তারপরে সাবমিট করতে হবে এবং এই কাজের জন্য নির্দিষ্ট অর্থ দিতে হবে। আবেদনের ৪৫ দিনের মধ্যে সঠিক প্যান কার্ড হাতে পাবেন গ্রাহকেরা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।