কোচবিহার: ১৭ দিন নিখোঁজ থাকার পর এক মহিলার কঙ্কাল উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল এলাকায়৷ মর্মান্তিক ঘটনাটি কোচবিহারের কোতোয়ালি থানার পুটিমারি ফুলেশ্বরী গ্রাম পঞ্চায়েতের শিবপুর এলাকার৷

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, নদীর চরে কিছু কুকুরকে হাড় নিয়ে খেতে দেখে এলাকার বাসিন্দারা। তারপর তাঁরা খেয়াল করে নদীর চরেই পরে আছে এক মহিলার শাড়ি, জুতো, অলংকার, এছাড়াও একটি ব্যাগ। সেই ব্যাগেই পাওয়া যায় আধার কার্ড৷ সেখান থেকে জানা যায় মহিলার নাম সুমিত্রা সরকার৷ বয়স ২৩ বছর। এরপর মহিলার স্বামী সন্তোষ সরকারকে খবর দেওয়া হয়। সে পোশাক ও অন্যান্য সামগ্রী দেখে তাঁর স্ত্রীকে শনাক্ত করেন।

ওই মহিলার স্বামী সন্তোষ সরকার জানান, ১৭ দিন ধরে নিখোঁজ ছিল সুমিত্রা। প্রতিবেশী গ্রামের এক যুবকের সঙ্গে বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক ছিল তার। অভিযোগ সেই যুবক ধনঞ্জয় বিশ্বাস খুন করেছে তাঁকে। কংকাল উদ্ধার হওয়ার পর থেকেই পলাতক ছিল ওই যুবক। পরে গ্রামবাসীরাই তাঁকে ধরে পুলিশের হাতে তুলে দেয়৷ পুলিশ ওই যুবক ও মৃতার স্বামীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে।

এদিকে ধনঞ্জয় সরকারের দিকেই অভিযোগের আঙ্গুল তুলেছে এলাকাবাসী৷ তাঁদের অভিযোগ ধনঞ্জয় ও সুমিত্রাকে হাতে নাতে ধরে ফেলে গ্রামবাসী৷ তারপর সালিশি সভায় জরিমানা করাও হয় তাদের। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে কোতোয়ালি থানার পুলিশ।