নয়াদিল্লি: অত্যাধুনিক F-16 বিমান নিয়ে ভারতে ঢোকার চেষ্টা করেছিল পাকিস্তান। আর তাকে তাড়া করতে যায় ভারতের মিগ-২১। যে বিমানেই ছিলেন অভিনন্দন। মিগ বিমান থেকে ছোঁড়া হয় বিশেষ মিসাইল, যার নাম R-73E।

এই মিসাইল আকাশ থেকে আকাশে আঘাত হানতে সক্ষম। যদিও এটি শর্ট রেঞ্জের মিসাইল, তবে কোনও বিমানকে আঘাত করতেই এটার ব্যবহার করা হয়। এই ক্ষেপণাস্ত্র ৩০ কিলোমিটার দূর পর্যন্ত আঘাত সক্ষম। সমুদ্রস্পৃষ্ট থেকে ০.০২ থেকে ২০ কিলোমিটার উচ্চতা পর্যন্ত উড়ন্ত লক্ষ্যে আঘাত হানতে পারে।

এই মিসাইলের গতিবেগ ঘণ্টায় প্রায় ২৫০০ কিমি। মূলত MiG-29, MiG-31, Su-27/33, Su-34 and Su-35 যুদ্ধবিমানগুলিতে এই মিসাইল ব্যবহার করা হয়। তেজসেও এই মিসাইল স্থাপন করার চিন্তাভাবনা চলছে বলে জানা গিয়েছে।

গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ভোররাতে পাক জঙ্গি ঘাঁটিতে এয়ার স্ট্রাইক করে ভারত। পাক অধিকৃত কাশ্মীরে জইশের সবচেয়ে বড় জঙ্গিঘাঁটিতে আকাশপথে মিরাজ-২০০০ যুদ্ধবিমান দিয়ে হামলা চালায় ভারতীয় বায়ুসেনা। সেই হামলার পরদিনই ভারতের আকাশসীমায় ঢুকে পড়ে একাধিক পাক যুদ্ধবিমান। তার মধ্যে তিনটি এফ-১৬ও ছিল। সেই তিন যুদ্ধবিমানের একটিকে তাড়া করতে গিয়েই পাকিস্তানের হাতে আটকে পড়েছিলেন অভিনন্দন। অভিনন্দের মিগ থেকে ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্র হানায় কুপোকাত হয় পাকিস্তানের এফ-১৬।