নয়াদিল্লি: প্রকাশ্যে এল ভারতের সাম্প্রতিক মিসাইল উৎক্ষেপণের ভিডিও। Defence Lover নামে একটি ফেসবুক পেজে সেই ভিডিওটি শেয়ার করা হয়েছে। ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, কিভাবে প্রবল গতিতে মিসাইলটি উড়ে যাচ্ছে আকাশের দিকে, তারপর নেমে যাচ্ছে টার্গেটে।

এটিই ভারতের অ্যাডভান্সড এয়ার ডিফেন্স সুপারসনিক ইন্টারসেপটর মিসাইল। গত সোমবার ওডিশায় পরীক্ষামূলকভাবে এই মিসাইলটির উৎক্ষেপণ করা হয়৷ উল্লেখ্য, এই মিসাইলটি লো অল্টিটিউটে থাকা যেকোনও ব্যালিস্টিক মিসাইলকে একেবারে ধ্বংস করে দিতে পারে৷

প্রসঙ্গত, চলতি বছরে এই নিয়ে তৃতীয়বার দেশে তৈরি মিসাইল পরীক্ষা করল ভারত। এই ইন্টারসেপ্টর মিসাইলকে একটি টার্গেটের বিরুদ্ধে উৎক্ষেপণ করা হয়। লঞ্চ কমপ্লেক্স ৩ থেকে উৎক্ষেপণ করা হয় পৃথ্বী মিসাইল। তার বিরুদ্ধেই ছোঁড়া হয় এই ইন্টারসেপটর মিসাইল। ওড়িশায় বালাসোরের কাছে চাঁদিপুরে এই পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ করা হয়।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সূত্রে জানানো হয়েছে, এই ইন্টারসেপ্টর মিসাইলটি প্রথমবারেই একেবারে সফলভাবে উৎক্ষেপণ হয়েছে৷ এর আগেই মিসাইল উৎক্ষেপণটি ১মার্চ এবং ১১ফেব্রুয়ারি হয়েছিল৷ ট্র্যাকিং রাডার থেকে সিগন্যাল পাওয়ার পরেই ছোঁড়া হয় ইন্টারসেপটর মিসাইলটি। যা পৃথ্বী মিসাইলকে মাঝ-আকাশেই ভেঙে দেয়৷ চাঁদিপুরে ইন্টিগ্রেটেড টেস্ট রেঞ্জ থেকে এই পৃথ্বী মিসাইলটি ছোঁড়া হয়৷

সূত্রের খবর, ইন্টারসেপটর মিসাইলটি ৭.৫মিটার লম্বা৷ এর মধ্যে রয়েছে বিশেষ নেভিগেশন সিস্টেম, হাই-টেক কম্পিউটার ও ইলেকট্রো-মেকানিক্যাল অ্যাকটিভেটর।

দেখুন ভিডিওটি:

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.