ইস্তানবুল: সবে মিস তুর্কি খেতাব জিতেছিলেন এই সুন্দরী৷ কিন্তু একটি টুইট সব উলট পালট করে দিল৷ বিতর্কিত টুইটের জেরে কয়েক ঘন্টার মধ্যে কেড়ে নেওয়া হল সেই খেতাব৷

২১শে সেপ্টেম্বর মিস তুর্কি প্রতিযোগিতার আসর বসে ইস্তানবুলে৷ সেখানে ১৮ বছর বয়সী ইতির এসেনকে এবারের সুন্দরী প্রতিযোগীতার বিজয়ী ঘোষণা করা হয়৷ এতদুর সব ঠিক ঠাকই ছিল৷ কিন্তু গোল বাধাল একটি টুইট৷ ইতির একটি টুইট করেন৷সেখানে এই সুন্দরী ১৫ জুলাইয়ের শহীদদের রক্তক্ষরণের সঙ্গে তার পিরিয়ডের তুলনা করেন৷এই বিতর্কিত টুইটের পরই শোরগোল পড়ে যায়৷

গত বছর ১৫ জুলাইতে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগানকে ক্ষমতাচ্যুত করার চেষ্টা চালায় বিক্ষোভকারীরা৷ সেই ঘটনায় ২৪৯ জন প্রাণ হারায়৷ সেই ঘটনাকে স্মরণ করে প্রতি বছর ১৫জুলাই দিনটি তুরস্কতে শহীদ দিবস হিসাবে পালন করা হয়৷

এদিকে সুন্দরী প্রতিযোগিতা জেতার পর ইতির শহীদদের রক্তক্ষরণের সঙ্গে তার পিরিয়ডের তুলনা করে টুইট করে লেখেন, ‘’১৫ জুলাইয়ের শহীদ দিবস উদযাপন করতে আজ সকালে আমার পিরিয়ড হয়েছে৷’’ এই টুইটের পরই বিতর্কের ঝড় ওঠে৷

সুন্দরী প্রতিযোগিতার উদ্যোক্তরা বিষয়টির সত্যতা যাচাই করার পরই ইতিরের কাছ থেকে খেতাবটি কেড়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়৷ এক উদ্যোক্তা জানান, টুইটের বিষয়টি জানার পরই একটি মিটিং ডাকা হয়৷ পোষ্টটির সত্যতা যাচাই করার পরই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ইতিরের কাছ থেকে খেতাবটি কেড়ে নিয়ে এসলি সুমেনকে দেওয়া হয়েছে৷আগামী ১৮ই নভেম্বর চায়নাতে অনুষ্ঠিত মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় তুরস্কের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করবেন এসলি৷
বিতর্কিত টুইটের পর এসলি ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন৷ যদিও এই ঘটনার পর বিরোধীরা বাক স্বাধীনতা খর্বের অভিযোগে তুরস্কের প্রেসিডেন্টের প্রবল সমালোচনা করে৷