স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা : বাংলা টেলিভিশন ক্যুইন এখন দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন হিন্দি টিভির জগতে৷ দর্শক তাঁর অভিনয়, গ্ল্যামার, সৌন্দর্য্যের নেশায় বুঁদ৷ হিন্দি ধারাবাহিক ‘ডায়েন’-এ মূল চরিত্রে না হলেও নজর কেড়েছেন মিশমী দাস৷

তাঁর ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে খানিক উঁকি ঝুঁকি মারতেই আবারও চোখ কপালে উঠল সাইবারবাসীর৷ মিশমী সেইসব অভিনেত্রীদের মধ্যে একজন যার রূপ-গুণের মায়া টেলিজগতে থেকে খুব কম সময়ের মধ্যে গিয়ে পড়েছে বড়পর্দায়৷

হট ব্যাকলেস ব্লাউজ থেকে ফ্রিল দেওয়া বল্যুন ব্লাউজ, আবার হট প্যান্ট থেকে জিনস-টিশার্ট, সব কিছুই নতুন ট্রেন্ড নিয়ে হাজির হন মিশমী৷ এর থেকেই বোঝা যায় রূপে গুণে নন ফ্যাশনের ব্যাপারেও রীতিমত জ্ঞান অভিনেত্রীর৷

নায়িকার ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইল ঘাঁটলে জেন ওয়াইয়ের মেয়েরা পেয়ে যাবে অসংখ্য টিপস৷ নেটিজেনের কথায় তাঁর সোশ্যাল মিডিয়া সাইটগুলো একদম সাধারণ মেয়েদের মতো৷ একটা সেলেব সেলেব ব্যাপার থেকেও গার্ল নেক্সট ডোর ভাবও রয়েছে৷

মিশমীর সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেল ঘাটলে আপনি রোজকারের জামা কাপড় পরার ফ্যাশন টিপস থেকে শুরু করে বিয়েবাড়ি কিংবা অন্যান্য অনুষ্ঠানের পরার পোশাকের টিপসও পেয়ে যাবেন৷

শাড়ির সঙ্গে কীভাবে কনট্রাস্ট করে ব্লাউজ পরতে হয় তাও শিখিয়ে দিচ্ছেন মিশমী৷ এ না হয় গেল শাড়ির গল্প৷ নায়িকা কিন্তু ওয়েস্টার্ন ওয়্যারের ক্ষেত্রেও বেশ ট্রেন্ডি৷ যেমন পলাজোর সঙ্গে স্ট্রাইপড টিশার্টের কম্বিনেশন৷

পড়ুন:  ‘জয়ী’ অভিনেত্রীর এনগেজমেন্টে শোরগোল ভক্তকূলে

ফ্যাশন ছাড়াও টেলিজগত মাতিয়ে তুলেছেন মিশমী৷ সম্প্রতি হিন্দি টেলিজগতে কাজ করার জন্য মিশমীর সোশ্যাল মিডিয়া ফোলোয়াড়ও বেশ বেড়ে গিয়েছে৷ মিশমীর মতো অভিনেত্রীর জন্য নেটিজেনের উৎসাহ দিন দিন বাড়ছে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.