স্টাফ রিপোর্টার, সিউড়ি: গৃহকর্ত্রীর মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে বাড়িতে লুঠ করল দুষ্কৃতীরা৷ ঘটনাটি ঘটেছে সিউড়ির সুভাষ পল্লিতে৷ দুষ্কৃতীরা সুনীল চৌধুরীর বাড়ি থেকে নগদ ও সোনা মিলিয়ে প্রায় লক্ষাধিক টাকা লুঠ করেছে বলে পরিবারের দাবি। ঘটনায় পুলিশ তদন্তে নেমেছে৷ এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ৷

নয়ডায় কোম্পানিতে কর্মরত সোমনাথের বিয়ে আগামী ২৭ জানুয়ারি। তার বাবা সুনীল চৌধুরীর কথায় ছেলের বিয়ের জন্য তাঁরা এক লাখ টাকা ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়েছিলেন। সোনার চেন, আংটি সহ কিছু সামগ্রী কিনেছিলাম। বুধবার ভোর রাতে দুই দুষ্কৃতী রিভলভার দেখিয়ে হানা দিয়ে আলমারি খুলে সব লুঠ করে নিয়ে যায়। তাদের দাবি ৫০ হাজার টাকা নগদ, সঙ্গে সোনার চেন আংটি ছিল।

গৃহকর্ত্রী সীমা দেবী জানান, ভোররাতে ঘরের দরজা খুলে শৌচে যান। সেই সময় দুজন দুষ্কৃতী আগে থেকেই ওত পেতে ছিল। তারা সীমা দেবীকে কানে বন্ধুক ঠেকিয়ে ঘরে ঢোকে। আলমারির চাবি নিয়ে তাকে দিয়েই লকার খুলিয়ে টাকা ও সোনা নিয়ে পালায়। দুষ্কৃতীরা পালিয়ে গেলে তিনি সুনীল বাবু ঘুম থেকে ডেকে তোলেন৷ কিন্তু ততক্ষণে যা হওয়ার হয়ে গিয়েছে৷ চৌধুরী পরিবারের সর্বস্ব লুঠ করে পালিয়েছে দুই দুষ্কৃতীরা৷

চৌধুরী পরিবারের অভিযোগ ঘটনার পর ভোর চারটে নাগাদ তাঁরা পুলিশকে খবর দেয়৷ কিন্তু পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছেছে সকাল প্রায় আট টা নাগাদ৷ কিন্তু ঠিক বিয়ের আগে এইভাবে লুঠ হওয়া চিন্তার ভাঁজ চৌধুরী পরিবারের৷

কিন্তু পুলিশের সন্দেহ হয় এতো জনবহুল এলাকায় কী করে দুই দুষ্কৃতী দীর্ঘক্ষণ ওত পেতে বসেছিল৷ তাই পুলিশ প্রকৃত ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি।