দার্জিলিং: ফের পাহাড়ে বোমাতঙ্ক৷ এবার ঘটনাস্থল মিরিক পুরসভা৷ বোমা না ফাটায় বড়সড় দুর্ঘটনার হাত থেকে রেহাই পেল মিরিক পুরসভা৷ জানা গিয়েছে, আজ মঙ্গলবার দুপুরে একদল দুষ্কৃতী পুরসভা লক্ষ্য করে বোমা ছুঁড়ে চম্পট দেয়৷ বোমাটি না ফাটায় রক্ষা পেয়ে যায় পুরসভা৷ মুহূর্তেই শুরু হয় বোমাতঙ্ক৷ ইতিমধ্যেই পুরসভার উদ্দেশে রওনা দিয়েছে সিআইডি’র বম্ব স্কোয়াড। খালি করে দেওয়া হয়েছে পুর ভবন৷ তবে, বোমাটিতে কী ধরণের বিস্ফোরক ব্যবহার করা হয়েছে, তা নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে৷

দিন কয়েক আগেই পরপর বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে পাহাড়৷  পেশকখোলার কাছে বড়সড় নাশকতার ছক কষা হয় বলেও জানা গিয়েছে৷ দার্জিলিংও কালিম্পংয়ের সংযোগকারী সেতু ওড়ানোর চেষ্টা করা হয়৷ তবে, সেতুটি লোহার থাকার ফলে পরিকল্পনা ভেস্তে গিয়েছে৷ ঘটনাস্থলে  বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা হয়৷ একইসঙ্গে গ্রেফতার এক মোর্চা নেতাও৷

আরও পড়ুন: থানা লক্ষ্য করে গ্রেনেড হামলা পাহাড়ে, বন্ধ টেলি-যোগাযোগ

পাহাড়ে শান্তি ফেরাতে মোর্চা নেতাদের বৈঠকে আহ্বান জানাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ মোর্চার তরফেও বৈঠকে যোগ দেওয় হয়েছে৷ এই পরিস্থিতিতে পাহাড়ে লাগাতার বিস্ফোরণ অব্যাহত, রাজ্যের শান্তি প্রক্রিয়া আরও একবার বিঘ্নিত হল বলে মনে করা হচ্ছে৷

এদিকে কালিম্পং থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে এক মোর্চা নেতাকে৷ তাঁর বিরুদ্ধে পাহাড়ে গোলমাল পাকানোর অভিযোগ রয়েছে৷পলদেম ভুটিয়া নামে ধৃত মোর্চা নেতা কালিম্পংয়ের পেডংয়ের দায়িত্বে ছিলেন৷গতকাল রাতেই নিজের বাড়ি থেকে তাঁকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷

পাহাড়ে পরপর গ্রেনেড হামলা হয়া উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে৷ থানা লক্ষ্য করে গ্রেনেড হামলা করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷ বুধবার রাত দুটো নাগাদ সুখিয়াপোখরি থানা লক্ষ্য করে গ্রেনেড হামলাটি করা হয় বলে জানা যায়৷ তবে প্রতিবারের মতো ওই ঘটনারও দায় নিতে অস্বীকার করে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা৷ সংবাদমাধ্যমকে চিঠি দিয়ে সেকথা জানিয়েও দেওয়া হয়৷