স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: স্বামীজির জন্মবার্ষিকীতে সম্প্রীতির বার্তা নিয়ে যুব দিবসে পথে নামল প্রদেশ কংগ্রেসের সংখ্যালঘু সেল। শনিবার শ্রদ্ধানন্দ পার্ক থেকে ট্যাবলো-শোভাযাত্রা গেল বিকেকানন্দ রোডে স্বামীজির বসতবাড়ি পর্যন্ত। রাস্তার মাঝেই নানান সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও করা হয়েছে।

দলের তরফে এই শোভাযাত্রা আয়োজনের দায়িত্বে ছিলেন হাঁসনের বিধায়ক তথা প্রদেশ কংগ্রেসের সংখ্যালঘু সেলের চেয়ারম্যান মিলটন রশিদ। তিনি বলেন, ‘আমরা যেমন নবির জন্মদিনে শোভাযাত্রা বের করি তেমনই স্বামীজির জন্মদিনেও সম্প্রীতি-মিছিল থেকে বার্তা দিতে চাই রাম-রহিমে বিভেদ নেই। বিজেপি বলছে রাম ওদের আর রহিম নাকি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। আমরা বলছি যাঁরা এই বিভেদের বিরুদ্ধে তাঁরা আসুন। স্বধর্মপালন করেও পরধর্ম ও সহিষ্ণুতার প্রতি আস্থাশীল হওয়া যায়। স্বামীজির জন্মবার্ষিকীতে আমাদের সঙ্গে পা মেলান।’

বিবেকানন্দের ১৫৬তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে এদিন সকাল থেকেই বেলুড় মঠ এবং স্বামীজির সিমলা স্ট্রিটের বাড়িতে ভক্তদের ঢল নামে। বিভিন্ন জায়গায় নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।এদিন সকালে সিমলা স্ট্রিটে বিবেকানন্দের বাড়িতে স্বামীজিকে শ্রদ্ধা জানান বেলুড় মঠের স্বামী পুণ্যাত্মানন্দজি মহারাজ৷

এদিন জেলায় জেলায় তৃণমূল কংগ্রেস যুব দিবস পালন করেছে৷ বিবেকানন্দের জন্মদিনে শ্রদ্ধা জানাতে একটি বর্ণাঢ্য মিছিলের আয়োজন করেছিল ফরওয়ার্ড ব্লক। বিবেকানন্দের বাণী, পোস্টার, ট্যাবলো নিয়ে এদিন মহাজাতি সদন থেকে মিছিল যায় বিবেকানন্দের বাড়ির সামনে, সিমলা স্ট্রিটে। নেতৃত্বে ছিলেন দলের রাজ্য সম্পাদক নরেন চট্ট্যোপাধ্যায়, হাফিজ আলম সইরানি প্রমুখ। মিছিল থেকে স্লোগান তোলা হয় ২৩ জানুয়ারি নেতাজির জন্মদিনকে জাতীয় দেশপ্রেম দিবস হিসেবে ঘোষণা করতে হবে।