ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, বারাসত : ফের মহিলাদের শ্লীলতাহানি বারাসতে। এই ঘটনায় পুলিশের হাতে আটক তিন।

জানা গিয়েছে, মহাষ্টমীর সন্ধ্যায় বন্ধুদের নিয়ে বারাসত ন’পাড়া থেকে দুই নাবালিকা ঠাকুর দেখে হেঁটে বাড়ি ফিরছিলেন। অভিযোগ, সেই সময় বারাসত ১২ নং রেল গেটের কাছে এক দল মদ্যপ যুবক তাঁদের উত্যক্ত করতে থাকে। পাত্তা না দিলে ওই মদ্যপরা দুজনের হাত ধরে টানতে থাকে।

এরপর ওই দুই নাবালিকা ভয় পেয়ে রাস্তায় সাহায্যের জন্য চিৎকার করলেও তাদের সাহায্যের জন্য কেউ এগিয়ে আসেনি বলে অভিযোগ। এরপর তারা কোনওরকমে বারাসত কলোনীর মোড়ে এসে ট্রাফিক পুলিশকে বিষয়টি জানায় ।

নাবালিকাদের থেকে অভিযোগ পাওয়ার পরই পুলিশ মদ্যপ দলের মধ্যে থাকা তিন জনকে আটক করে । তাদের বারাসত থানায় নিয়ে এসে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে পুলিশ।

এদিকে পুজোর শুরুতেই ‘সুরক্ষা’ বলে একটি আ্যাপ চালু করেছে বারাসত জেলা পুলিশ। যাতে সহজেই মানুষ পুলিশের সহায়তা পায়।তার মধ্যে মহাষ্টমী তে ১২ নং রেল গেটের মত জায়গায় শ্লীলতাহানির শিকার হতে হল শহরের দুই তরুনীকে। গোটা ঘটনায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে বারাসাত শহরে। গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বারাসত থানার পুলিশ।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.