ভোপাল: উত্তরপ্রদেশের পর এবার মধ্যপ্রদেশ। হাথরসের ভয়ঙ্কর ঘটনার পর আবার একই ধরনের ঘটনা মধ্যপ্রদেশের খরগোন জেলায়। সেখানে এক নাবালিকাকে তাঁর বাড়ি থেকে অপহরণ করে গণধর্ষণ করে তিন ব্যক্তি। হাথরসের নির্যাতিতা তরুণীর মৃত্যুর একদিন পরেই বুধবার এই ঘটনা সামনে এসেছে।

নাবালিকার ভাইয়ের বক্তব্য অনুসারে পুলিশ জানিয়েছে, ওই ৩ জন মঙ্গলবার রাতে তাঁদের বাড়ি আসে এবং জল চায়। এরপরেই হঠাৎ করে ঝামেলা শুরু হলে নাবালিকার দাদাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দিয়ে নাবালিকাকে তুলে নিয়ে যায় অভিযুক্তরা।

অভিযোগ একটি মাঠে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ করা হয় ওই নাবালিকাকে। এরপর সেখান থেকে পালিয়ে যায় অভিযুক্তরা। পুলিশ জানিয়েছে, নির্যাতিতার ভাই, কিছু স্থানীয় লোকজন জড়ো করে অভিযুক্তদের তাড়া করারও চেষ্টা করেছিল।

ঘটনার খবর শুনেই তদন্তের জন্য ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ। ইতিমধ্যেই এ বিষয়ে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারের জন্য তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ।

উত্তরপ্রদেশের হাথরসে ১৫ দিন আগে গণধর্ষণের শিকার হয় এক তরুণী। কাধিক ফ্র্যাকচার, পক্ষাঘাত এবং জিভে গুরুতর আঘাতের কারণে মঙ্গলবার দিল্লিতে মৃত্যু হয় ওই ২০ বছরের তরুণীর। এরপর থেকেই ক্ষোভে ফুঁসছে দেশ।

ইতিমধ্যেই সমালোচনার মুখে পড়েছে পুলিশও। অভিযোগ, মঙ্গলবার জোর করেই ওই নির্যাতিতার দেহ নিয়ে যায় পুলিশ। মঝরাতে বাড়ির কাছেই একটি ক্ষেতে দাহ করে দেওয়া হয় নির্যাতিতা তরুণীর দেহ। সাংবাদিকরা যখন জিজ্ঞাসা করেন, এটা কী জ্বালানো হচ্ছে। তারা সম্পূর্ণ উত্তর এড়িয়ে গিয়ে বলে, আমরা জানি না। দেশ জুড়ে সাধারণ মানুষ এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদে সরব হয়ে উঠেছে।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।