জয়পুর: সেই ছোট্ট প্রিন্সকে খেয়াল আছে? পরিত্যক্ত কুয়োর মধ্যে পরে গিয়েছিল। দীর্ঘ সময় পরে তাঁকে সেই কুয়ো থেকে উদ্ধার করা হয় সেনার সাহায্যে।

১৩ বছর পরে সেই প্রিন্সের স্মৃতি ফের ফিরে এসেছে। প্রিন্সের মতোই খেলতে গিয়ে পরিত্যক্ত কুয়োর ভিতরে পরে গিয়েছে এক শিশু কন্যা। ঘটনাটি পশ্চিমের রাজ্য রাজস্থানের। ওই রাজ্যের যোধপুর জেলার মেলানা গ্রামে পরিত্যক্ত কুয়োর মধ্যে পরে গিয়েছে চার বছর বয়সী ওই শিশু কন্যা।

আরও পড়ুন- টায়ার ফেটে বিপত্তি, ট্রাকের সঙ্গে টেম্পোর ধাক্কায় মৃত ১৩

খুব স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনার জেরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে বিস্তীর্ণ এলাকায়। একই সঙ্গে রয়েছে এলাকাবাসীর উৎকন্ঠা। স্থানীয় সুত্রে জানা গিয়েছে, সোমবার বিকেলের দিকে খলতে গিয়েই ওই কুয়োয় পরে যায় মেয়েটি। পাশে থাকা অন্যান্যরা দেখে গ্রামের লোকদের খবর দেয়। সেই সময় থেকে অনেক রকম চেষ্টা করেও মেয়েটিকে উদ্ধার করা যায়নি।

ইতিমধ্যেই মেয়েটিকে উদ্ধারের জন্য দমকলবাহিনীকে খবর দেওয়া হয়েছে। গভীর গর্তে পরে গেলেও প্রাণ রয়েছে ওই শিশু কন্যাটির শরীরে। তাকে বাঁচিয়ে রাখতে ইতিমধ্যেই ঘটনাস্থলে পৌঁছে গিয়েছে শতাধিক অ্যাম্বুলেন্স। ১০৮ টি অ্যাম্বুলেন্সের সাহায্যে তাকে অক্সিজেন সরবারহ করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন- সদ্যোজাতের মৃত্যুর ঘটনায় হাসপাতালে ভাঙচুর শিশুর পরিজনদের

এমনই ঘটেছিল হরিয়ানার বাসিন্দা প্রিন্সের সঙ্গে। দিনটা ছিল ২০০৬ সালের ১৪ অগস্ট তখন প্রিন্সের বয়স চার বছর। পরিত্যক্ত কুয়োয় পরে গিয়েছিল সেদিনের ছোট্ট প্রিন্স। তাকেও বাঁচিয়ে রাখতে খাবার এবং অক্সিজেন সরবারহ করা হয়েছিল। দীর্ঘ প্রায় ৫৩ ঘণ্টা পরে সেনাবাহিনীর প্রচেষ্টায় তাকে উদ্ধার করা হয়।

সেই ঘটনার কিছুদিন পরে রাজস্থানেই এই ধরণের একটি ঘটনা ঘটে। শতাধিক ফুট নিচে কুয়োর মধ্যে পরে যায় এক শিশু। যদিও তাকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।