মুম্বই: করোনা ভাইরাস‌ এখন মহামারীর আকার ধারণ করেছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে এদেশে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। চরম সংকটে অর্থনীতি। তাই এই পরিস্থিতিতে অর্থমন্ত্রক রিজার্ভ ব্যাংকের কাছে আর্জি জানিয়েছে এমন কিছু ব্যবস্থা নিতে যাতে ঋণদাতাদের সুবিধা হয়। একটি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যম তার প্রতিবেদনে এমনটাই জানিয়েছে। জানা গিয়েছে এই মর্মে অর্থমন্ত্রক চিঠি দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কাছে।
ওই প্রতিবেদন জানাচ্ছে, আর্থিক পরিষেবা দপ্তরের সচিব‌ দেবাশীষ পান্ডা লিখিতভাবে রিজার্ভ ব্যাংকের কাছে কয়েক মাসের জন্য ঋণ পরিশোধ, মাসিক কিস্তি, সুদ ইত্যাদি দেওয়ার ক্ষেত্রে  ছাড় অথবা  মোরাটোরিয়ামের ব্যবস্থা করার অনুরোধ জানিয়েছেন। পাশাপাশি  অনুৎপাদক সম্পদের ক্ষেত্রে সম্পদের শ্রেণীবিভাগে কিছু ছাড়ের ব্যবস্থা করার কথাও লিখেছে। পাশাপাশি তিনি গুরুত্ব দিয়েছেন গোটা ব্যবস্থায় নগদ যোগানে দিকে।
ওই চিঠিতে বিশেষভাবে দৃষ্টিগোচরে আনা হয়েছে, করোনা ভাইরাস মহামারী আকার ধারণ করায় ব্যবসার জগতে যে‌ আয়ের ক্ষতি হয়েছে তার জন্য ত্রাণের ব্যবস্থার দিকে। কারণ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ২১ দিনের লকডাউন ঘোষণা করেছে যা শুরু হয়েছে বুধবার থেকে।
এই লকডাউনের ফলে ব্যবসা এবং ব্যক্তিগত ভাবে তাদের ঋণের জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ দিতে দেরি হতে পারে। আর তাতে যেন ব্যাংকের কাছে তাদের ক্রেডিট প্রোফাইল খারাপ না হয় সেই দিকটাই দেখতে বলা হয়েছে।
প্রসঙ্গত বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন দেশের এই পরিপ্রেক্ষিতে ১.৭০ লক্ষ কোটি টাকার প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন। যাতে দেশের দরিদ্র ও প্রান্তিক মানুষদের জন্য তিন মাসের চাল ,গম ,ডাল দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধে লিপ্ত ডাক্তার স্বাস্থ্য কর্মীদের জন্য পঞ্চাশ লক্ষ টাকার বিমার কথা বলা হয়েছে। আবার সরকারের পক্ষ থেকে ছোট সংস্থায় কর্মী এবং মালিক উভয়ের পিএফ দেওয়ার অর্থ আগামী তিন মাস ‌সরকার দেবে বলে জানিয়েছে।