সিওল : দুই কোরিয়া শান্তি চুক্তিতে সহমত হয়েছিল আগেই৷ পরে জানানো হয়েছিল দুই দেশের সীমান্তবর্তী গ্রাম পানমুনজম থেকে অস্ত্র ও মাটিতে পোঁতা ল্যাণ্ডমাইন সরিয়ে নেওয়া হবে৷ সেই চুক্তিতে মাথায় রেখেই সীমান্ত থেকে ল্যান্ডমাইন সরানোর কাজ শুরু করেছে উত্তর কোরিয়া৷

দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিওলে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এই খবরের সত্যতা স্বীকার করেছেন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী জিওয়ং কেয়ং ডো৷ তিনি জানিয়েছেন সীমান্ত থেকে দক্ষিণ কোরিয়ার আধিকারিকদের সামনে রেখে মোট ৬৩৬টি মাইন তুলে ফেলেছে উত্তর কোরিয়া৷ সেপ্টেম্বর মাসেই এই মাইন নিষ্ক্রিয় করার কাজ শুরু হয়েছে৷

আরও পড়ুন : হঠাৎ কানফাটানো শব্দ! চোখের সামনে লুটিয়ে পড়ল পুলিশ…

পানমুনজম এলাকার জয়েন্ট সিকিওরিটি এরিয়া থেকে এই মাইন সরিয়ে নেওয়ার কাজ শুরু হয়৷ দুদেশের আধিকারিকরাই এই কর্মসূচিতে যোগ দান করেছিলেন৷ উপস্থিত ছিলেন দুদেশের সেনাকর্তারাও৷ বিশে অক্টোবর নিরস্ত্রীকরণের কাজ শেষ হয়৷ দক্ষিণ কোরিয়া জানিয়েছে তাদের দেশের সীমানায় কোনও মাইন তুলে ফেলা অবশিষ্ট নেই৷ অন্যদিকে উত্তর কোরিয়া সূত্রে খবর প্রায় ৬৩৬টি মাইন তারা তুলে ফেলেছে৷

দুদেশের যৌথ অসামরিক এলাকায় প্রথম নিরস্ত্রীকরণের কাজ শুরু হয়৷ ধীরে ধীরে সীমানা এলাকা বরাবর মাইন নিষ্ক্রিয় করা হয়৷ রবিবারই দুই কোরিয়া সীমান্ত থেকে সেনা সরানোর কাজ সম্পূর্ণ করেছে৷ মোট ১১টি গার্ড পোস্ট সরানো হয়েছে৷ গার্ড পোস্ট সরানো হয়েছে পানমুনজম থেকেও৷

আরও পড়ুন : ‘ছট পূজা করলে সোনিয়া গান্ধীর বুদ্ধিমান সন্তান হত’

এই প্রক্রিয়া চলাকালীন পানমুনজম গ্রামে কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়৷ জয়েন্ট সিকিওরিটি এরিয়ায় দুই কোরিয়ার সেনাদের মুখোমুখি দাঁড়াবার ব্যবস্থা করা হয়৷ তবে তা বৈরিতা তৈরির জন্য নয়৷ বন্ধুত্ব বাড়াবার জন্য বলে জানানো হয়েছে দু দেশের তরফে৷

এদিকে, উত্তর কোরিয়ার একটি প্রতিনিধি দল রবিবারই রাশিয়া সফরে গিয়েছে৷ উত্তর কোরিয়ার এক সংবাদ সংস্থা সূত্রে এমনই খবর৷ রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের ধারণা এ মাসেই বা আগামী মাসের শুরুতে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন রাশিয়া সফর করতে পারেন।