গুয়াহাটি: ১০০ বছরের ঐতিহ্য বহন করছে অসমের এক মসজিদ। দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় রয়েছে সেটিল এলাকার হিন্দুরাও এটিকে সম্প্রীতির প্রতীক বলে মেনে চলেছে। না ভেঙে অভিনব উপায় সরানো হল সেই মসজিদ।

ঐতিহাসিক ওই মসজিদকে ১৫ থেকে ২০ দিনের মধ্যে নগাওঁয়ের পুরানিগুদাম এলাকার কোনও এক জায়গায় স্থনানান্তরিত করা হচ্ছে।

অসমে ১০০ বছরের পুরনো এই মসজিদটি দোতলা। আর তাকেই আধুনিক স্থাপত্য-প্রযুক্তির দ্বারা স্থানান্তরিত করার কাজ চলছে অসমে। ইঞ্জিনিয়াররা বলছেন, ১৫ থেকে ২০ দিনের মধ্যে এই মসজিদ স্থানান্তরকরণের কাজ শেষ হয়ে যাবে।

অসমের এই মসজিদ স্থানান্তরকরণের কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে হাইড্রোলিক সিস্টেম। যার নেপথ্যে রয়েছে হরিয়ানার সংস্থা আর আর অ্যান্ড সনস। এনএইচ ৩৭-এ অবস্থিত এই মসজিদ স্থানান্তরকরণ ঘিরে রীতিমত তাজ্জব অনেকেই।

যদিও এই ঐতিহাসিক ইমারতের স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় অসম প্রশাসনের তরফে। জানা গিয়েছএ, এনএইচ ৩৭-এ গাড়ি চলাচলে খানিকটা বিভ্রাট দেখা দিচ্ছিল। তারপরই স্থানীয় মুসলিম ও হিন্দুদের মতামত নিয়ে এই মসজিদকে স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

জানা যায় ১৯৫০ সালের ভয়াবহ ভূমিকম্পেও এও মসজিদের কোনও ক্ষতি হয়নি।