নয়াদিল্লি: বিদেশ থেকে কিনতে হচ্ছিল সাড়ে চার হাজার টাকা করে, কিন্তু এবার দেশেই তৈরি হল করোনা পরীক্ষার কিট। যার দাম পড়ছে মাত্র ১২০০ টাকা। এই কিট তৈরি করেছেন ভাইরোলজিস্ট মিনাল দখাবে ভোসলে। তাঁর অসাধ্য সাধনে করোনা মোকাবিলায় বেশ কিছুটা এগিয়ে গেল ভারত। বৃহস্পতিবারই প্রথম বাজারে আনা হয় ওই কিট।

পুণে, মুম্বই, দিল্লি, গোয়া ও বেঙ্গালুরুর ১৫০টি ল্যাবে ইতিমধ্যে এই কিট সরবরাহ করা হয়েছে। দেশে করোনা ছড়িয়ে পড়ার পর মাত্র ৬ সপ্তাহের মধ্যে এই আবিষ্কার করেছেন পুণের ভাইরোলজিস্ট মিনাল দখাবে ভোসলে। যেহেতু এই কিটের দাম কম, তাই এই কিটের ফলে আর্থিক দিক থেকেও লাভবান হবে ভারত। তবে কিটটি কতটা সঠিক ভাবে কাজ করছে এখন সেটাই দেখার।

সম্প্রতি মা হয়েছেন ভাইরোলজিস্ট মিনাল দখাবে ভোসলে। গর্ভাবস্থায় এই কিট তৈরি করেছেন তিনি। এক্ষেত্রে তাঁর বেশ কিছুটা সমস্যা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। পুণের মাইল্যাব ডিস্কভারিতেই করোনা পরীক্ষার কিট তৈরি হয়েছে। তাঁর এই আবিষ্কারে তাঁকে সাহায্য করেছেন আরও ১০ জন।

মা হওয়ার পর মিনাল দখাবে ভোসলে জানান, “আমার এখন মনে হচ্ছে ২টি সন্তানের জন্ম দিয়েছি।” তাঁর কথায় “দেশের জন্য কিছু করতে পেরেছি, এতেই আমি খুশি।” দেশকে সেবা করার এটাই সবচেয়ে উপযুক্ত সময় ছিল বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। অন্যদিকে ভারতে ইতিমধ্যে আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছে ১১২৭ এ। এর মধ্যে ২৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। সুস্থ হয়েছেন ৯০ জন। এখনও করোনার দ্বিতীয় পর্যায়েই রয়েছে ভারত।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।