নয়াদিল্লি: শুরু থেকেই খবরে ছিলেন মিমি চক্রবর্তী। তৃনমূল থেকে দুই অভিনেত্রীকে টিকিট দেওয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন অনেকে। অবশেষে সাংসদ হয়েই নিজের কেন্দ্রের সমস্যার কথা লোকসভায় বললেন মিমি। মঙ্গলবার শপথ নেওয়ার পর বুধবার যাদবপুর কেন্দ্রের একটি সমস্যার কথা সংসদে তুলে ধরেন মিমি।

তিনি জানান, দীর্ঘদিন ধরেই তাঁর কেন্দ্রের মানুষের দাবি, চম্পাহাটি রেল স্টেশনের উপর একটি ফ্লাই ওভার করে দেওয়া হোক। সেই দাবির কথাই বলেন মিমি। এখানে ফ্লাই ওভার না থাকার কারণে ট্রাফিকের সমস্যাও চলছে দীর্ঘদিন ধরে। এমনকি এই কারণে অনেক সময় রোগীকেও রাস্তায় অপেক্ষা করতে হয় বলে উল্লেখ করেন তিনি।

শুধু চাম্পাহাটি ই নয়। একই সমস্যা সোনারপুর ও বিদ্যাধরপুরেও রয়েছে। দুটি স্টেশন ই পূর্ব রেলওয়ের শিয়ালদা ডিভিশনের অন্তর্গত। যাদবপুর কেন্দ্র থেকে প্রায় আড়াই লক্ষ ভোটের মার্জিনে জয় পেয়েছেন অভিনেত্রী। পিছনে ফেলে দিয়েছেন তাবড় রাজনীতিবিদ বাম প্রার্থী বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্যকে। একই সঙ্গে গতবারের বোলপুরের সাংসদ অনুপম রায়কেও হারতে হয়েছে নবাগতা মিমির কাছে।

 

সংসদের অধিবেশন শেষের পরে সংসদ ভবনের বাইরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন যাদবপুরের সাংসদ। তিনি বলেন, “রাজনীতি এবং চলচ্চিত্র জগতের মধ্যে বিশেষ কোনও পার্থক্য নেই, সাদৃশ্য আছে। দুই ক্ষেত্রেই মানুষের জন্য কাজ করতে হয়।”