স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ট্যাক্সি চালকের কাছে হেনস্থার ঘটনায় শুক্রবার আলিপুর আদালতে গিয়ে গোপন জবানবন্দি দিলেন অভিনেত্রী-সাংসদ মিমি চক্রবর্তী। সেইসঙ্গে বললেন, এই ধরণের ঘটনার জন্য তিনি কলকাতার বা রাজ্যের বদনাম তিনি চান না।

এদিন বিচারবিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে গোপন জবানবন্দি দিয়ে সাংসদ-অভিনেত্রী সাফ জানিয়ে দেন যে, “আমার কলকাতা প্রশাসন কিংবা রাজ্যের বদনাম হোক চাই না। আজ দোষী ছাড়া পেয়ে গেলে আমার শহর আর নিরাপদ থাকবে না। ভবিষ্যতে এরকম আরও অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে পারেন মহিলারা। তাই এই মামলায় পুলিশি তদন্তে সহযোগিতা করতে নিজে এসে জবানবন্দি করে গেলাম।”

উল্লেখ্য, ট্যাক্সি থেকে কটূক্তি এবং অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করায় গাড়ি থেকে নেমে ১৪ সেপ্টেম্বর, সোমবার দুপুরে এক ট্যাক্সিচালককে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছিলেন সাংসদ-অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী। তাঁর অভিযোগ ছিল, সোমবার রাতে জিম থেকে একাই বাড়ি ফিরছিলেন মিমি। সঙ্গে দেহরক্ষী ছিলেন না। বালিগঞ্জ এবং গড়িয়াহাটের মাঝামাঝি রাস্তায় সিগন্যাল থাকায় তাঁর গাড়িটি বেশ কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকে। হঠাৎ ওভারটেক করে তাঁর গাড়ির পাশে এসে পৌঁছয় এক ট্যাক্সি।

হঠাৎ তিনি লক্ষ্য করেন, ওই ট্যাক্সির চালক তাঁর দিকে তাকিয়ে অশ্লীল অঙ্গিভঙ্গি করছে। সঙ্গে সঙ্গে গাড়ি থেকে নেমে ওই ট্যাক্সিচালককে বের করে এনে তাকে সাবধান করেন তিনি। সে সময় ওই ব্যক্তি মত্ত অবস্থায় ছিল। অভিযোগ, তখনই মিমি চক্রবর্তীকে উদ্দেশ্য করে কটূক্তি করে ওই ট্যাক্সিচালক। রাস্তায় জটলা হয়ে যাওয়ায় তখনকার মতো গাড়ি নিয়ে বেরিয়ে যান মিমি। সোজা গড়িয়াহাট থানায় গিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন।

এর পর রাতেই ইএম বাইপাসের ধারে আনন্দপুর থানা এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতারও করা হয়েছে। ধৃতের বিরুদ্ধে ভারতীয় সংবিধানের ৩৫৪, ৩৫৪এ, ৩৫৪ডি এবং ৫০৯ ধারায় অভিযোগ দায়ের করেছে পুলিশ। ১৫ সেপ্টেম্বর ওই ট্যাক্সিচালককে আদালতে তোলা হলে বিচারক তাকে ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন।

ওইদিনই মিমি বলেছিলেন যে, “আজকে যদি আমি ওকে ছেড়ে দিতাম, তাহলে পরের দিন ও অন্য কোনও মেয়ের গায়ে হাত দেওয়ার সাহস পেত। নিরাপদে বাড়ি ফেরার জন্য একটা ট্যাক্সিতে মেয়েরা চালককে বিশ্বাস করেই উঠবে। কিন্তু কিছু মানুষের জন্য এই বিশ্বাসটা নষ্ট হোক, আমি মোটেই চাই না। তাই একজন কর্তব্যশীল নাগরিক হিসেবে এই ধরনের মানুষকে উচিত শিক্ষা দেব ভেবেছিলাম। ধন্যবাদ কলকাতা পুলিশকে যে তাঁরা অতি তৎপরতার সঙ্গে বিষয়টির পদক্ষেপ করেছেন।”

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।