কলকাতা- আজ ভাইফোঁটা। আর ভাইফোঁটা মানেই ভাই-বোনদের মধ্যে সারাদিন ধরে চরম ব্যস্ততা। সেলিব্রিটি ভাইবোনদের ব্যস্ততাও দ্বিগুণ হয়। বাদ যান না রাজনীতিকরা। শুধু নিজের ভাইবোনদেরই নয়। এদিন স্নেহের মানুষকে আপন করে নিতে পাতানো ভাইবোনরাও পালন করেন ভাইফোঁটা। প্রতি বছরই রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসকে ভাইফোঁটা দেন অভিনেত্রী তথা তৃণমূল সাংসদ মিমি চক্রবর্তী। কিন্তু এবার আর মিমির কাছ থেকে ভাইফোঁটা পাচ্ছেন না অরূপ।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে জয়ী হয়ে সাংসদ হয়েছেন মিমি চক্রবর্তী। তাই প্রতি বছর অভিনেত্রী হিসেবে ভাইফোঁটা দিলেও, এই প্রথমবার সাংসদ হিসেবে ফোঁটা দেওয়ার কথা ছিল মিমির। কিন্তু নতুন সাংসদের হাত থেকে আর এবছর ভাইফোঁটা পাচ্ছেন না অরূপ বিশ্বাস।

জানা গিয়েছে কাজের জন্যই মঙ্গলবার অর্থাৎ ভাইফোঁটায় শহরে থাকছেন না মিমি। আর তাই এবার ভাইফোঁটা দিতে পারছেন না তারকা সাংসদ। তবে সোমবার যাদবপুরে একটি সভায় গিয়ে এলাকার ভাইদের থেকে আগেভাগেই আশীর্বাদ চেয়ে নেন মিমি।

প্রসঙ্গত, বিগত বেশ কয়েক বছর ধরেই ঘটা করে ভাইফোঁটা পালন করেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস। কখনও বৃদ্ধাশ্রমে, কখনও নিজের পাড়ায় ভাইফোঁটার আয়োজন করেন তিনি। আর সেই আয়োজনে অবশ্যই তারার মেলা বসে। গত বছরও মিমি চক্রবর্তী ছাড়াও অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা সেন, রণিতা, প্রিয়ঙ্কা সরকার অরূপ বিশ্বাসকে ভাইফোঁটা দিয়েছিলেন। এবারেও মিমি ছাড়া অন্য বোনদের থেকে তিনি ভাইফোঁটা নেবেল বলেই আশা করা যায়।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।