তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: একটি নির্দিষ্ট ব্যাঙ্কের গ্রাহকদের অ্যাকাউন্টে বেশ কিছু গ্রাহকদের পাঁচ হাজার থেকে এক লক্ষ টাকা ঢুকেছে। এমন খবরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ালো ইন্দাসের দীঘলগ্রাম এলাকায়।

স্থানীয় সূত্রে খবর, গত ৭ ফেব্রুয়ারি ওই ব্যাঙ্কের দীঘলগ্রাম শাখার এক গ্রাহক নিজের পাশবই আপ টু ডেট করাতে এসে বিষয়টি তার প্রথমে নজরে আসে। তার পর থেকেই ব্যাঙ্কে গ্রাহকদের পাশ বই আপ টু ডেট করার লম্বা লাইন পড়ে যায়। এই ঘটনার পর অনেক গ্রাহকের মুখে চওড়া হাসি দেখা গেলেও একটা বড় অংশের মানুষ নিরাশ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। কিন্তু যে একটা অংশের গ্রাহকের টাকা ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ঢুকেছে সেই টাকা কোথা এল এখনও বিষয়টা পরিস্কার নয় কারও কাছেই।

নবকুমার হাটি নামে এক গ্রাহক বলেন, এই ব্যাঙ্কে আমার ও আমার স্ত্রী দু’জনের আলাদা আলাদা অ্যাকাউন্ট রয়েছে। তবে তার অ্যাকাউন্টে কোনও টাকা না ঢুকলেও তাঁর স্ত্রীর অ্যাকাউন্টে ১৭ হাজার ৩৫৯ টাকা ঢুকেছে বলে দাবি করেন তিনি। স্থানীয় বামনিয়া গ্রামের এক গ্রাহক বিকাশ রায় বলেন, এই ব্যাঙ্কে তাঁদের পরিবারের চার জনের চারটি অ্যাকাউন্ট রয়েছে। কোনটিতেও কোনও টাকা ঢোকেনি। তবে বেশ কিছু জনের টাকা ঢুকেছে, তিনি তা শুনেছেন বলে জানান।

সংশ্লিষ্ট ব্যাঙ্কের এক আধিকারিকও বিষয়টি স্বীকার করে নিয়েছেন। তিনি বলেন, বেশ কিছু গ্রাহকের এনইএফটির মাধ্যমে তিন হাজার থেকে এক লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঢুকেছে। কিন্তু কোথা থেকে ওই টাকা ঢুকেছে বিষয়টি তার জানা নেই বলেই জানিয়েছেন তিনি।