নয়াদিল্লি: সম্প্রতি কার্টোস্যাট স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করে শত্রুঘাঁটিতে নজর আরও জোরদার করেছে ভারতীয় সেনা। কিন্তু এই একটাই নয়, মোট ১৩টি স্যাটেলাইটে শত্রুপক্ষের উপর নজর রাখে সেনাবাহিনী। এমনটাই জানিয়েছে ইসরো। এইসব স্যাটেলাইটের মাধ্যমে সীমান্তের মানচিত্র দেখা যায়, সীমান্তের ওপারে নজরদারি চালানো যায়, সমুদ্রেও থাকে কড়া নজর।

সূত্রের খবর, পৃথিবীর কক্ষপথের কাছে ঘোরাফেরা করে এইসব রিমোট সেন্সিং স্যাটেলাইট। ভূ-পৃষ্ঠ থেকে ১২০০ কিলোমিটার উচ্চতায় থাকা এই স্যাটেলাইট পৃথিবীর উপর নজরদারি চালাতে সাহায্য করে। যেমন ধরা যাক, কার্টোস্যাট-২ নামের এই স্যাটেলাইট ০.৬ স্কোয়্যার মিটারের কোনও বস্তুকেও স্পষ্ট দেখতে পায়।

এছাড়াও ভারতের সামরিক বাহিনীর হাতে রয়েছে কার্টোস্যাট-১, রিস্যাট-১, রিস্যাট-২-এর মত স্যাটেলাইট। ভারতীয় নৌসেনা ব্যবহার করে জিস্যাট-৭। এই স্যাটেলাইটের মাধ্যমে নৌসেনা সবসময় যুদ্ধজাহাজ, সাবমেরিন ও এয়ারক্রাফটের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করতে পারে। এছাড়া শত্রুপক্ষের স্যাটেলাইট ধ্বংস করে দেওয়ার জন্য ভারতের হাতে রয়েছে অ্যান্টি স্যাটেলাইট ওয়েপন। একমাত্র চিন, রাশিয়া ও আমেরিকা এই অস্ত্র তৈরি করতে সক্ষম।

এমনকি ভারতের ঘরে থাকা ব্যালিস্টিক মিসাইল প্রয়োজনে স্যাটেলাইট লঞ্চারের কাজ করতে পারে বলে জানিয়েছেন ডিআরডিও-র প্রাক্তন ডিরেক্টর রবি গুপ্তা। এমনই একটি মিসাইল হল অগ্নি-৫। তিনি আরও বলেন, মুখোমুখি যুদ্ধের দিন শেষ। এবার যুদ্ধ হবে প্রযুক্তিতেই। আর সেই সব প্রযুক্তিই হবে রিমোট সেন্সিং।