ওয়াশিংটন: ভারত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক মজবুত করার লক্ষ্যে দেশে পা রাখতে চলেছেন মার্কিন বিদেশ সচিব মাইক পম্পেও৷ বিদেশ সফরে বেরোবার আগে সাংবাদিকদের তিনি বলেন ভারতের সঙ্গে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বরাবরই সুসম্পর্ক৷ সেই সম্পর্ককে ঝালিয়ে নেওয়াই এই সফরের উদ্দ্যেশ্য৷ উল্লেখ্য এই সফরের প্রথমেই ভারতে পা রাখবেন পম্পেও৷

সফরের একদম শেষের গিকে তাঁর যাওয়ার কথা দক্ষিণ কোরিয়ায়৷ এর মাঝে তিনি যাবেন শ্রীলঙ্কা ও জাপানেও৷ মূলত ইন্দো প্যাসিফিক রিজিওনের দেশগুলিতেই আগামীকাল অর্থাৎ ১২ই জুন ইন্ডিয়া আইডিয়াস সামিটে বক্তব্য রাখবেন৷ পম্পেওর ভারত সফর শুরু হচ্ছে ২৪শে জুন৷

এই সামিটে ভারতীয় ব্যবসায়ীদের সঙ্গে সাক্ষাত করবেন বিদেশ সচিব৷ সেখানেও আসন্ন ভারত সফর নিয়ে কথা হতে পারে৷ সোমবার ইউএস স্টেট ডিপার্টমেন্টে বসে এই ইঙ্গিত দেন মাইক পম্পেও৷ তিনি জানান, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে ভারতের৷ নয়াদিল্লির সঙ্গে মজবুত দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক স্থাপনে আগ্রহী ওয়াশিংটন৷ ডোনাল্ড ট্রাম্পের বার্তা নিয়েই ভারত সফর শুরু হবে৷

আরও পড়ুন : সাংবাদিক গ্রেফতার ইস্যু: সুপ্রিম কোর্টের তীব্র ভর্ৎসনার মুখে যোগী সরকার

অর্থনৈতিক লেনদেন এই সফরের মূল আলোচ্য বিষয় হতে চলেছে বলে ইঙ্গিত মিলেছে৷ তবে এরই সঙ্গে ভারত ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সম্পর্কের নয়া সমীকরণ গড়ে উঠুক, সেই আশাও করছে ওয়াশিংটন বলে এদিন জানান পম্পেও৷

স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র মর্গ্যান ওরট্যাগাস সাংবাদিকদের ইন্দো প্যাসিফিক রিজিওনে মাইক পম্পেওর বিদেশ সফর সম্পর্কে জানান ২৪জুন থেকে ৩০শে জুন পর্যন্ত এই সফর চলবে৷ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের বার্তা এইসব দেশগুলিতে পৌঁছে দেবেন বিদেশ সচিব৷

তিনি আরও জানান ভারতে নরেন্দ্র মোদী দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় আসার পর দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে দৃঢ়তা নিয়ে আশাবাদী ট্রাম্প৷ মোদীর আমলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্কের উন্নতি হয়েছে ভারতের, যা সুদূর ভবিষত্যে দুদেশের বাণিজ্যিক আদানপ্রদানের পথ মসৃণ করবে বলে আশাবাদী তিনি৷

আরও পড়ুন : মোদীর বিমান ব্যবহার করতে পারে আকাশপথ, ছাড়পত্র পাকিস্তানের

জি২০ সম্মেলনে যোগ দেওয়ার কথা রয়েছে মাইক পম্পেওর৷ জাপানের ওসাকায় জুন মাসের ২৮-২৯ তারিখে এই সম্মেলন হবে৷ এই প্রথমবার জাপানে বসছে জি-২০ সম্মেলনের আসর৷ এই সম্মেলনে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের সঙ্গে বিশেষ বৈঠকে বসতে পারেন পম্পেও৷ উত্তর কোরিয়া পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ প্রক্রিয়া সম্পর্কে আলোচনা হতে পারে দুই দেশের৷ এক যোগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও জাপান উত্তর কোরিয়াকে এই ইস্যুতে ফের অনুরোধ জানাতে পারে৷ এই সম্মেলনে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে ইনের সাথে বৈঠকে বসতে পারেন পম্পেও৷

এর আগে, ভারত ইরান থেকে তেল নিতে পারবে না, এমনই মার্কিন নিষেধাজ্ঞা রয়েছে বলে জানা গিয়েছিল৷ মে মাসের শুরুতেই এই নিষেধাজ্ঞা শিথিল করার জন্য মার্কিন বিদেশ সচিব মাইক পম্পেও-এর সঙ্গে কথা বলেন ভারতের তৎকালীন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ৷