দেবনাথ মাইতি, মেদিনীপুর: অটো আর টোটো-র বিবাদ ফের তুঙ্গে। বুধবার সকালে জেলা পরিবহণ দফতর ৭টি টোটো ও ৩টি অটো আটক করে। আর তাতেই ফের চটেছেন এলাকার টোটো চালকরা৷ এখনও নির্দিষ্ট সংগঠন এখনও তৈরি না হলেও টোটো চালকরা এদিন ঐক্যবদ্ধ হয়ে পরিবহণ দফতরে যান। প্রসঙ্গত, মঙ্গলবারই শহরে অটো ও টোটো চালকরা প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছিল নিজেদের নিরাপত্তার দাবিতে। কিন্তু বুধবার সকাল হতেই টোটো আটক হওয়া টোটো চালকেরা মেনে নিতে পারেননি।

মাস খানেক আগে যখন শহরে টোটো ছিল না তখন অটো আর রিক্সাই রাস্তায় চলত। তাতেই এই দুয়ের গন্ডগোল লেগেই থাকতো এখন টোটো আসায় সেই ঝামেলা হয়েছে ত্রিমুখী। এখন শহর ও শহর লাগোয়া অটো চলে প্রায় ছ’শ আর টোটো একমাসেই শহরে চলছে প্রায় একশ। তবে জনপ্রিয়তার নিরিখে টোটো এগিয়ে রয়েছে, তাই মেদিনীপুর শহরে টোটোর সংখ্যা বাড়বে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু অটো, টোটো ও রিক্সা এই তনটি তিন চাকার যানের লড়াইয়ে সাধারন যাত্রীরা হয়রান হচ্ছেন। এক টোটো চালক খোকন দাস বলেন, ‘কাল থেকে আমরা হয়রান হচ্ছি। বেকার ছেলে কিছু করে খাচ্ছি। এতে দুষণ নেই আওয়াজ নেই, আমরা কোন ষ্ট্যান্ড করিনি। তাহলে আমাদের উপর এত ঝামেলা করছে কেন? কালকের ঝামেলার পরে আজ আবার টোটো আটক করেছে? দুষণ নেই বলে আমাদের কোন রেজিস্ট্রেশন নেই তাহলে কেন আটক করছে আমাদের? ’

পরিবহন দপ্তরের এক কর্তা জানিয়েছেন, শহরে অটো ও টোটো দুটোই চলবে তবে নিয়ম মেনে। টোটোর রেজিস্ট্রেশন না হলেও আমাদের কাছে হিসাব রয়েছে। নম্বরের তালিকার বাইরে যেগুলি আছে তার মধ্যে আজ ৭টি আটক করা হয়েছে। বেআইনি অটো-টোটো চলাচলে লাগাম টানা হবে। গোলমাল হতে দেওয়া যাবে না৷