মেলবোর্ন: ভালোবাসার দিবস অর্থাৎ ভ্যালেন্টাইনস ডে’র ঠিক আগে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট অনুরাগীদের জন্য খারাপ খবর। ক্রিকেট ভালোবাসেন অথচ বিশ্বজয়ী অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্ককে পছন্দ করেন না, এমন ক্রিকেট অনুরাগীর সংখ্যা প্রায় নেই বললেই চলে। আর ভ্যালেন্টাইনস ডে’র ঠিক আগে সাত বছরের বিবাহ-বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিলেন মাইকেল ক্লার্ক ও কেলসি লি। বেশ কয়েকমাস আলাদা থাকার পর অবশেষে কঠিন এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করলেন প্রাক্তন অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক এবং তাঁর স্ত্রী।

কঠিন সিদ্ধান্ত গ্রহণের পর এক যৌথ বিবৃতিতে ক্লার্ক এবং লি জানিয়েছেন, ‘বেশ কিছুটা সময় আলাদা থাকার পর আমরা কাপল হিসেবে আলাদা হওয়ার মত কঠিন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি।’ বিবৃতিতে তারা আরও বলেন, ‘দুজন দু’জনের প্রতি পূর্ণ সম্মান রেখেই এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছি। তবে আমরা একত্রে আমাদের কন্যার যাবতীয় দায়িত্ব পালন করে যাব।’ সূত্রের খবর, ৪০ মিলিয়ন ডলার অর্থে রফা হয়েছে বিশ্বজয়ী অধিনায়ক ও লি’র বিবাহ-বিচ্ছেদ প্রক্রিয়া।

২০১২ গাঁটছড়া বেঁধেছিলেন বছর আটত্রিশের ক্লার্ক ও লি। ২০১৫ বিশ্বকাপ জয়ের পরবর্তী সময়ে ক্লার্কের অবসর ঘোষণার কয়েকমাস পর জন্ম নেয় তাদের একমাত্র কন্যা সন্তান। সূত্রের খবর বিগত পাঁচ মাস ধরে ক্লার্ক এবং লি আলাদাই রয়েছেন। জানা গিয়েছে, সিডনিতে দু’জনের ১২ মিলিয়ন ডলার অর্থমূল্যের বাড়ি ছেড়ে গত কয়েকমাস ক্লার্ক বন্ডি বিচ অ্যাপার্টমেন্টেই বসবাস করছেন। এমনকি বিবাহ-বিচ্ছেদের পরেও অবস্থার কোনও হেরফের হবে না। অর্থাৎ, সিডনির বাড়িতেই মেয়েকে নিয়ে থাকবেন লি। পক্ষান্তরে ক্লার্ক থাকবেন আলাদা বাসভবনে।

২০০৪-১৫ সময়কালে অস্ট্রেলিয়ার জার্সি গায়ে ১১৫ টেস্ট ও ২৪৫ ওয়ান-ডে ম্যাচ খেলেছেন মাইকেল ক্লার্ক। টেস্ট ক্রিকেটে ব্যাট হাতে ৮,৬৪৩ রানের পাশাপাশি ওয়ান-ডে’তে প্রাক্তন অজি অধিনায়কের সংগ্রহে রয়েছে ৭,৯৮১ রান। দুই ফর্ম্যাটে তাঁর শতরান সংখ্যা ৩৬টি। ২০১৫ ক্লার্কের নেতৃত্বেই পঞ্চমবারের জন্য বিশ্বকাপ জেতে ক্যাঙ্গারুবাহিনী।