দিল্লি: মুম্বইকে ম্যাচ উপহার দিল দিল্লি! সহজ করে বললে এটাই ম্যাচের সারাংশ!

১৬৯ রান তাড়া করতে নেমে দিল্লির হতশ্রী ব্যাটিংকার্ড দেখে এর চেয়ে সহজ করে কিছু বলা যায় না৷ শুরুতে শিখর- পৃথ্বীর মারকাটারি ব্যাটিংয়ে পাওয়ার প্লে’তে ৪৮ রানের পার্টনারশিপ৷ এরপরও রান তাড়া করতে নেমে দিল্লি ম্যাচ হারল ৪০ রানে৷ নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১২৮ রানে ইনিংস শেষ শ্রেয়সদের৷ দুরন্ত বোলিংয়ের সুবাদে ম্যাচ জিতে নিল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স৷

আরও পড়ুন- জন্মদিনে রাহুলকে বিশেষ বার্তা পান্ডিয়ার

অল্প পুঁজির রান নিয়ে ম্যাচে দারুণ লড়াই মুম্বইয়ের৷ স্পিনার রাহুল চাহার একাই নিয়ে গেলেন ৩ উইকেট৷ ম্যাচের গেমচেঞ্জার এই লেগ স্পিনারই৷ শিকারের তালিকায় নাম পৃথ্বী শ, শিখর ধাওয়ান ও শ্রেয়স আইয়ার৷ দিল্লির টপ অর্ডারের তিন বিধ্বংসী ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়ে মুম্বইকে ম্যাচে ফেরান তরুণ চাহার৷ ৪ ওভারে ডানহাতি স্পিনারের খরচ মাত্র ১৯রান৷ আইপিএল কেরিয়ারের রাহুল চাহারের এটাই সেরা বোলিং স্পেল৷

আরও পড়ুন-হার্দিকের পাওয়ার হিটিংয়ে দিল্লিকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিল মুম্বই

চাহারের বলে রিভার্স সুইপ মারতে গিয়ে দায়িত্বজ্ঞানহীনভাবে আউট হন শিখর৷ উইকেট ছুঁড়ে দিয়ে আসেন পৃথ্বীও৷ বোল্ড হন শ্রেয়স৷ ১৬০ প্লাস রান তাড়া করতে নেমে ব্যাটিং ভরাডুবির কারণেই ঘরের মাঠে বিপক্ষকে পয়েন্ট উপহার দিয়ে মাঠ ছাড়ল দিল্লি ক্যাপিটালস৷

দিল্লির মিডল অর্ডারে জোর ধাক্কা দিয়ে দুই উইকেট তুলে নেন জসপ্রীত বুমরাহ৷ এদিন তাঁর শিকারের তালিকায় প্রথম নাম ঋষভ পন্তের৷ কোটলায় পন্ত শো শুরু হওয়ার আগেই ঋষভকে বোল্ড করেন বুমরাহ৷ জসপ্রীতের অন্য উইকেটটি অক্ষর প্যাটেলের৷ ৪ ওভারে এদিন তাঁর খরচ মাত্র ১৮ রান৷  ম্যাচে কিমো পলকে রান আউটও করেন বুমরাহ৷

রাহুল-বুমরাহের দুরন্ত বোলিংয়ে ভর করেই কোটলায় দিল্লি বধ করে পয়েন্ট টেবিলে দু’নম্বরে উঠে এল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স৷ ৯ ম্যাচে রোহিতদের সংগ্রহ এখন ১২ পয়েন্ট৷ ৯ ম্যাচে ৭টিতে জিতে ১৪ পয়েন্টে শীর্ষে ধোনির চেন্নাই সুপার কিংস৷

আরও পড়ুন- ঘোষিত দক্ষিণ আফ্রিকা স্কোয়াড, বিশ্বকাপে আমলাতেই আস্থা রাখলেন নির্বাচকরা

এর আগে প্রথমে ব্যাট করে স্কোরবোর্ডে ১৬৮ রান তোলে মুম্বই৷ ১৫ বলে ৩২ ধুঁয়াধার ইনিংস খেলেন হার্দিক পান্ডিয়া৷ ম্যাচের সেরাও হয়েছেন ভারতীয় অলরাউন্ডার৷ হার্দিকের ইনিংস সাজানো ৩টি ছয় ও ২টি চার দিয়ে৷

২৬ বলে  ক্রুণাল করেন অপরাজিত ৩৭রান৷ পঞ্চম উইকেটে  ৫৪ রানের পার্টনারশিপে গড়ে পান্ডিয়া ব্রাদার্স৷ চাপের মুহূর্তে দুই অল-রাউন্ডার পান্ডিয়া ব্রাদার্সের বিধ্বংসী পার্টনারশিপই ম্যাচের পার্থক্য গড়ে দিল৷