শারজা: চেন্নাই সুপার কিংসকে ১০ উইকেটে হারিয়ে ফের লিগ শীর্ষে উঠে এলে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স৷ শুক্রবার শারজায় সুপার কিংস-কে উড়িয়ে দেয় চারবারের চ্যাম্পিয়নরা৷ এই হারের ফলে ২০২০ আইপিএল থেকে ছিটকে গেল তিনবারের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই সুপার কিংস৷ ১১ ম্যাচে ধোনিদের পয়েন্ট মাত্র ৬৷ সুতরাং বাকি তিনটি ম্যাচ জিতলেও প্লে-অফে ওঠার কোনও আশা নেই সুপার কিংসের৷

১১৫ রানের সহজ টার্গেট তাড়া করতে গিয়ে কোনও বেগ পেতে হয়নি মুম্বই ইন্ডিয়ান্সকে৷ সুপার কিংস বোলারদের নিয়ে ছেলেখেলা করে ১২.২ ওভারে কোনও উইকেট না-হারিয়ে ম্যাচ জিয়ে নেয় মুম্বই৷ রোহিত শর্মা বিশ্রামে থাকায় এদিন কুইন্টন ডি’ককের সঙ্গে মুম্বইয়ের ইনিংস শুরু করেন ইশান কিষান৷ তাঁর দুরন্ত হাফ-সেঞ্চুরিতে হাসতে হাসতে ম্যাচ জিয়ে নেয় গতবারের চ্যাম্পিয়নরা৷ এই জয়ের ফলে প্লে-অফের দোড়গোরায় পৌঁছে গেল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স৷

মাত্র ২৯ বলে হাফ-সেঞ্চুরি করেন ইশান৷ চলতি আইপিএলে তাঁর দ্বিতীয় হাফ-সেঞ্চুরি৷ শেষ পর্যন্ত ৩৭ বলে পাঁচটি ছক্কা ও হাফ-ডজন বাউন্ডারি মেরে ৬৮ রানে অপরাজিত থাকেন ইশান৷ আর ৩৭ বলে ৪৬ রানের অপরাজিত থাকেন ডি’কক৷ ইনিংসে পাঁচটি বাউন্ডারি ও ২টি ওভার বাউন্ডারি মারেন তিনি৷

এর আগে প্রথম ব্যাটিং করেন ৯ উইকেট হারিয়ে মাত্র ১১৪ রান তুলেছিল চেন্নাই সুপার কিংস৷ রোহিতের অনুপস্থিতিতে এদিন মুম্বইকে নেতৃত্ব দেন কাইরন পোলার্ড৷ এদিন দলে প্রচুর পরিবর্তন করে সিএসকে৷ নতুনদের সুযোগ দেয় সুপার কিংস থিঙ্কট্যাঙ্ক৷ কিন্তু চূড়ান্ত ব্যাটিং ব্যর্থতা সিএসকে-র৷ মাত্র ২১ রানে পাঁচ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকবে সুপার কিংস৷ শুধু তাই নয়, ৩০ রানে ৬ উইকেট হারায় তারা৷ ইনিংসের ৭ ওভারেই ডাগ-আউটে ফেরেন ক্যাপ্টেন ধোনি৷ পাঁচ নম্বরে নেমে ১৬ বলে ১৬ রানে ডাগ-আউটে ফেরেন সিএসকে ক্যাপ্টেন৷

ট্রেন্ট বোল্ট ও জসপ্রীত বুমরাহের দুরন্ত বোলিংয়ের সামনে অসহায় আত্মসমপর্ণ করে সুপার কিংস ব্যাটসম্যানরা৷ ব্যতিক্রম কারান৷ ৪৭ বলে ৫২ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলে দলকে ১১৪ রানে পৌঁছে দেন এই অল-রাউন্ডার৷ তাঁকে কিছুটা সঙ্গ দেন লেগ-স্পিনার তাহির৷ ১০ বলে ১৩ রানের অপরাজিত থাকেন তিনি৷ সিএসকে ইনিংসে মাত্র চার ব্যাটসম্যান দু’ অংকের রানে পৌঁছন৷

জেলবন্দি তথাকথিত অপরাধীদের আলোর জগতে ফিরিয়ে এনে নজির স্থাপন করেছেন। মুখোমুখি নৃত্যশিল্পী অলোকানন্দা রায়।