রোদে সারাদিন বাইরে থেকে তেতে পুড়ে ত্বকের হাল মারাত্মক খারাপ হয়৷ পাশাপাশি চলে যায় ত্বকের উজ্জ্বলতা৷ সেই উজ্জ্বলতা ফেরাতে আপনাকে কি না কি করতে হয়৷ পারলারে গিয়ে ফেশিয়াল করালেও সেই গ্লো আর ফেলে না৷ অযথা অনেক হুলো টাকা খরচা হয়৷ তাও আপনারা বিভিন্ন দামী কসমেটিক প্রোডাক্ট ব্যবহার করতে গিয়েও স্কিন খারাপ হয়ে যায়য৷ তাই এই ঘরোয়া পদ্ধতিতে ফিরিয়ে আনুন জ্বেল্লা৷

১) চন্দনের গুঁড়া
এক চামচ চন্দনের গুঁড়োর নিয়ে তার সঙ্গে একটু জল মিশিয়ে প্যাক তৈরি করুন৷ লাগাবার পর ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

২) লেবুর রস
লেবুর রসে ত্বকের জ্বেল্লা ফেরায়৷ লেবুর রস তুলোয় নিয়ে মুখে লাগাতে থাকুন। ১০-১৫ মিনিট পর জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। লেবু ত্বকে ন্যাচারাল ব্লিচ হিসেবে কাজ করে।

আরও পড়ুন:  দেবের “ইয়ে দোস্তি হম নাহি তোড়েঙ্গে” ভার্সান দেখেছেন?

৩) হলুদের গুঁড়া
এক চা চামচ হলুদের গুঁড়োর সঙ্গে সামান্য পরিমাণে গোলাপজল মিশিয়ে একটা প্যাক তৈরি করুন। রাতে ঘুমানোর আগে এই প্যাকটি মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে গোলাপজল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

৪) টক দই
দুই চামচ ঠান্ডা টক দইয়ের সঙ্গে এক চামচ ঠান্ডা দুধ মিশিয়ে মুখে লাগান। শুকনো পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। তারপর ঠান্ডা জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

৫) নারকেল তেল
হালকা গরম করে মুখে এবং ঘাড়ে লাগিয়ে নিন৷ কিছুক্ষণ ভালো করে মাসাজ করুন৷ সারা রাত রেখে দিন৷ সকালে উঠে ধুয়ে ফেলুন৷

৬) অ্যালোভেরা জেল
এক চামচ অ্যালোভেরা জেল নিয়ে এক চিমটে হলুদগুঁড়ো মেশান৷ তাতে এক চামচ করে মধু এবং দুধ মিশিয়ে দিন৷ মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট রাখুন৷ তারপর হালকা গরম জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।