বার্সেলোনা: চার ম্যাচ। সময়টা হিসেব করলে এক মাসের কিছুটা বেশি সময়। লা-লিগায় মেসির গোলখরা উদ্বিগ্ন করে তুলেছিল সমর্থকদের। অবশেষে তিনি ফিরলেন। আর ফিরলেন তো ফিরলেন, একেবারে স্বমহিমায়। এইবারের বিরুদ্ধে শনিবার লা-লিগার ২৫তম ম্যাচে প্রথমার্ধে ৪০ মিনিটের মধ্যে হ্যাটট্রিক তুলে নিলেন আর্জেন্তাইন সুপারস্টার। হ্যাটট্রিক সহ এদিন ৪ গোলে থামলেন মেসি। অপর একটি গোল আর্থার মেলোর। প্রতিপক্ষকে ৫-০ গোলে গুঁড়িয়ে দিয়ে লিগ শীর্ষে বার্সেলোনা।

এদিন ৫ গোলে জয়ের ফলে লা-লিগার ইতিহাসে সর্বকালীন গোলের নিরিখেও চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদকে টপকে গেল কাতালান ক্লাবটি। ম্যাচের ১৪ মিনিটে এদিন গোলের খাতায় প্রথম নাম তোলেন বার্সার নয়নের মণি। যদিও বার্সার জালে বল জড়িয়ে ওয়েক-আপ কলটা সেতিয়েনের দলকে ৫ মিনিটেই দিয়েছিল এইবার। ৩৭ মিনিটে ভিদালের বাড়ানো বল ধরে বামপ্রান্তিক দৌড়ে বিপক্ষ রক্ষণের একাধিক ডিফেন্ডারকে হেলায় পরাস্ত করেন আর্জেন্তাইন সুপারস্টার। এরপর বাঁ-পায়ের কোনাকুনি শটে বল জালে রাখেন মেসি।

তিন মিনিট বাদে হ্যাটট্রিক সম্পূর্ণ করেন বাঁ-পায়ের জাদুকর। বক্সের মধ্যে ফাঁকায় বল পেয়েও গোলে শট নিতে কাল বিলম্ব করেন ফরাসি স্ট্রাইকার আতোয়াঁ গ্রিজম্যান। এইবারের এক ডিফেন্ডার এসে বল ক্লিয়ার করলে তা জমা পড়ে ফাঁকায় দাঁড়িয়ে থাকা লিওর পায়ে। বাঁ-পায়ের আলতো প্লেসিংয়ে বল জালে রাখতে ভুলচুক হয়নি আর্জেন্তাইনের। প্রথমার্ধেই হ্যাটট্রিক তুলে নিয়ে দলের জয় একপ্রকার নিশ্চিত করে ফেলেন মেসি।

গোলক্ষুধা দ্বিতীয়ার্ধেও জারি ছিল তাঁর। যদিও চতুর্থ গোলটি পেতে ৮৭ মিনিট অবধি অপেক্ষা করতে হয় মেসিকে। আউট অফ উইন্ডোতে তাঁকে দলে নেওয়া নিয়ে কম বিতর্ক হয়নি। কিন্তু পরিবর্ত হিসেবে দলে নেমে তাঁর প্রয়োজনীয়তা বোঝালেন মার্টিন ব্রাথওয়েট। তাঁর পাস থেকেই বল ধরে বিপক্ষ গোলরক্ষক ও এক ডিফেন্ডারকে বোকা বানিয়ে তাঁর চতুর্থ গোলটি করলেন মেসি। নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে ব্রাথওয়েটের শট বিপক্ষ গোলরক্ষক প্রতিহত করলে ফিরতি বল দূরপাল্লার শটে জালে জড়িয়ে দেন আর্থার মেলো।

জয়ের ফলে ২৫ ম্যাচে ৫৫ পয়েন্ট নিয়ে লিগের মগডালে উঠল বার্সেলোনা। কারণ দিনের অপর ম্যাচে লেভান্তের কাছে হারতে হল রিয়াল মাদ্রিদকে। একমাত্র গোলে ম্যাচ হেরে ২৫ ম্যাচ শেষে ৫৩ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয়স্থানে নেমে গেল জিদানের দল।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ