এস্প্যানিওল: জ্বলে উঠলেন লিওনেল মেসি। চমৎকার দু’টি ফ্রি-কিকে গোল এল ফুটবল রাজুপত্রের পা-থেকে৷ মেসির জোড়া গোলে এস্প্যানিওলকে তাদেরই মাঠেই উড়িয়ে দিল বার্সেলোনা। লা লিগায় শনিবার রাতে ৪-০ ম্যাচে নেয় বার্সা৷

প্রতিপক্ষের জালে বিরতির আগেই তিনবার বল পাঠিয়ে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয় বার্সেলোনা। ভাগ্য বিরূপ না-হলে এই সময়ে জয়-পরাজয়ের হিসেবটাও শেষ করে ফেলতে পারতেন মেসি-সুয়ারেজরা৷ ম্যাচের প্রথম মিনিট থেকেই ছন্দে ছিলেন মেসি। ১৭ মিনিটে বার্সেলোনার এগিয়ে যাওয়া গোলটিও আসে তার পা-থেকে। প্রায় ২৭ গজ দূর থেকে চমৎকার এক ফ্রি-কিকে প্রতিপক্ষের জালে বল জড়ান বার্সা অধিনায়ক৷

ম্যাচে দ্বিতীয় গোলেও অবদান মেসির৷ ২৬ মিনিটে তাঁর রক্ষণচেরা পাস ডি-বক্সে বাঁ-দিকে পেয়ে এক জনকে কাটিয়ে উঁচু শটে দূরের পোস্ট দিয়ে ঠিকানায় পাঠান দেম্বেলে। গত মাসের শেষ সপ্তাহে আতলেতিকো মাদ্রিদের মাঠে ফরাসি এই ফরোয়ার্ডের শেষ মুহূর্তের গোলেই হার এড়িয়েছিল বার্সেলোনা। ৩৬ মিনিটে মেসির পাস পেয়ে পোস্টে মেরে সুযোগ নষ্ট করেন সুয়ারেজ। পরের মিনিটে ইভান রাকিতিচের প্রচেষ্টা গোলরক্ষক ঠেকানোর পর ফিরতি বলে আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডের হেডও ক্রসবারে লাগে।

কয়েকবার হতাশ করা সুয়ারেজ অবশেষে ৪৫ মিনিটে গোলের দেখা পান৷ দেম্বেলের পাস ধরে এগিয়ে গিয়ে বাইলাইনের কাছ থেকে উরুগুয়ের স্ট্রাইকারের শট গোলরক্ষকের পায়ে লেগে জালে জড়ায়। চলতি লিগে এটি ১০ নম্বর গোল সুয়ারেজের। ৬৫ মিনিটে আরও একটি অসাধারণ ফ্রি-কিকে ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার মেসি। ১১ গোল নিয়ে চলতি লিগের গোলদাতার তালিকায় ক্রিস্তিয়ানো স্তুয়ানির সঙ্গে যৌথভাবে শীর্ষে উঠে বার্সা ফরোয়ার্ড।

১৫ ম্যাচে ৯ জয় ও চার ড্রয়ে করে ৩১ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে বার্সেলোনা। ভালেন্সিয়ার সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে ৩ পয়েন্ট কম নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে সেভিয়া। এদিন অন্য একটি ম্যাচে আলাভেসকে ৩-০ গোলে হারিয়ে তিন নম্বরে রয়েছে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। পঞ্চম স্থানে রয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ।