বার্সেলোনা: অবশেষে জয়ে ফিরল বার্সেলোনা৷ বুধবার রাতে অবনমনের আওতায় থাকা এলচের বিরুদ্ধে সহজ জয় তুলে নিলে রোনাল্ড কোম্যানের দল। ন্যু ক্যাম্পে লিওনেল মেসির জোড়া গোলে ৩-০ ম্যাচ জিতে নেয় বার্সেলোনা৷

দুই অর্ধে দুই কৌশল নেয় কোম্যানের ছেলেরা৷ প্রথমার্ধে প্রতিপক্ষের জমাট রক্ষণের বিরুদ্ধে সুবিধা করতে পারেননি বার্সা ফুটবলারা। তবে দ্বিতীয়ার্ধে পরিকল্পনামাফিক ফুটবল খেলে জয় নিশ্চিত করেন মেসিরা৷ জোড়া গোল করার পাশাপাশি সতীর্থের গোলে অবদান রাখেন আর্জেন্তাইন অধিনায়ক৷ ম্যাচের তৃতীয় গোলটি করেন জর্দি আলবা। এই জয়ে ফলে পয়েন্ট টেবলে চির প্রতিদ্বন্দ্বিদের সঙ্গে ব্যবধান কমাল বার্সেলোনা। ২৪ ম্যাচে ৫০ পয়েন্ট নিয়ে তিন নম্বরে রয়েছেন মেসিরা৷ আর সমসংখ্যক ম্যাচে ৫২ পয়েন্ট নিয়ে দু’ নম্বরে রয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ৷ আর ২৩ ম্যাচে ৫৫ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ।

ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারত এলচে। ফ্রান্সিসকো ত্রিনকাওয়ের শট ঝাঁপিয়ে আটকে দেন বার্সা গোলরক্ষক। তিন মিনিট পর এলচের সামনেও আরও একটি সহজ সুযোগ ছিল। কিন্তু ১০ গজ দূর থেকে উড়িয়ে মারেন লুকাস বোয়ে। প্রথমার্ধে প্রায় ৭০ শতাংশ বল দখলে রেখে এলচের রক্ষণাত্মক কৌশলের বিরুদ্ধে গোলের দেখা পায়নি বার্সেলোনা৷

দ্বিতীয়ার্ধে নতুন ছকে খেলে বার্সা৷ ৪-২-৩-১ ছকে খেলান বার্সা কোচ কোম্যান৷ তৃতীয় মিনিটেই বার্সার অপেক্ষার অবসান হয়৷ বল নিয়ে ডি-বক্সের মুখে মার্টিন ব্রাথওয়েটকে বাড়িয়ে ভেতরে ঢুকে পড়েন মেসি। সতীর্থের ব্যাকহিলে ফিরতি পাস ধরে বাঁ-পায়ের শটে গোল করে দলকে এগিয়ে নেন আর্জেন্তাইন তারকা। ৬৮ মিনিটে ব্যবধান বাড়ান মেসি৷ মাঝমাঠের কাছ থেকে বল পায়ে প্রতিপক্ষের তিন খেলোয়াড়কে পেছনে ফেলে ডি-বক্সে ঢুকে কাটব্যাক করেন ফ্রেংকি ডি ইয়ং। আর বল ধরে দু’জনের বাধা এড়িয়ে গোল করে মেসি৷ সেই সঙ্গে মরশুমে লা লিগায় ১৮টি গোলের মালিক হলেন বার্সা তারকা৷

ম্যাচের তৃতীয় গোলটি আসে ৭৩ মিনিট৷ র্দি আলবার গোলে জয় নিশ্চিত করে বার্সেলোনা। মেসির ক্রস ডি-বক্সে পেয়ে হেডে ছ’ গজ বক্সের মুখে বাড়ান ব্রাথওয়েট। বাঁ-পায়ের গোল করেন আলবা৷ পরিবর্ত হিসেবে নামা অঁতোয়ান গ্রিজমান শেষ দিকে দারুণ দু’টি সুযোগ নষ্ট না-করলে আর বড় ব্যবধানে জিততে পারত বার্সেলোনা। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে দুই ম্যাচ পর জয়ের দেখা পেল বার্সেলোনা। গত সপ্তাহে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে পিএসজির বিপক্ষে ৪-১ গোলে হারের পাঁচ দিন পর লা-লিগায় কাদিজের বিরুদ্ধে ড্র করেছিল বার্সা৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.