কলকাতা: ফুটবল সম্রাট পেলে, ফুটবলের রাজপুত্র মারাদোনার সঙ্গে একইসারিতে স্থান লিওনেল মেসির। শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণের জন্য তাঁর বিশ্বকাপ জেতার প্রয়োজন নেই। এমনটাই মত আর্জেন্তিনার তিনবারের বিশ্বকাপার হার্নান ক্রেসপোর।

টিএসকে 25k’র ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে কলকাতায় পা রেখে একদা সতীর্থকে প্রশংসায় ভরিয়ে দিলেন দেশের চতুর্থ সর্বোচ্চ গোলস্কোরারের। প্রাক্তন চেলসি তারকার কথায়, ‘সেরা ফুটবলার হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করার জন্য মেসির বিশ্বকাপের প্রয়োজন নেই। ইতিহাস ঘাঁটলে শ্রেষ্ঠ ফুটবলার হিসেবে আমার মাথায় পাঁচজন ফুটবলারেরই নাম আসে- পেলে, ডি স্তেফানো, জোহান ক্রুয়েফ, দিয়েগো মারাদোনা এবং তারপরের স্থানটাই মেসির।’ তবে ২০২২ কাতার বিশ্বকাপে মেসির অপেক্ষার অবসান হবে বলে মনে করেও ক্রেসপো বলছেন কাজটা ভীষণই কঠিন।

আশাবাদী ক্রেসপো বলেছেন, ‘এটা আমাদের স্বপ্ন যে ২০২২ মেসি বিশ্বকাপ জিতবেন। তবে কাজটা খুব কঠিন। নিশ্চিত মেসি ফের চেষ্টা করবেন।’ তার আগে কলম্বিয়ার সঙ্গে যুগ্ম আয়োজক হিসেবে আর্জেন্তিনার কোপা আমেরিকা জয়ের যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে বলে মনে করেন দেশের জার্সি গায়ে চতুর্থ সর্বোচ্চ ৩৫ গোলের মালিক। ৪৪ বছরের প্রাক্তন জাতীয় দলের তারকা যদিও গোলমুখে ক্ষিপ্রতার প্যারামিটারে এগিয়ে রেখেছেন একদা সতীর্থ গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতাকে। তবে মেসি এবং মারাদোনাকে ‘ভিন্ন গ্রহের’ বলেই উল্লেখ করেছেন ক্লাব ফুটবলে ৪৫৩ ম্যাচে ১৯৮ গোলের মালিক।

ব্যালন ডি’অরের প্রসঙ্গ উঠতেই ক্রেসপো বলেন কোনওদিনই আমি ব্যালন ডি’অরের পিছনে ছুটিনি। কারণ, প্রাক্তন আর্জেন্তাইন তারকার কথায় ব্যালন ডি’অর ‘ব্যক্তিগত ট্রফি’। কেরিয়ারে কখনও লাল কার্ড না দেখা ক্রেসপোর কথায়, ‘ফুটবল একটা টিম গেম। তাই আমার মনে হয় না এমন ট্রফি জেতা কেরিয়ারে গুরুত্বপূর্ণ।’ নিজের ক্লাব কেরিয়ার নিয়ে বলতে গিয়ে ক্রেসপো বলেন, ‘আমার হৃদয়ে সিরি ‘এ’ কিন্তু বর্তমানে ইপিএল-ই সেরা।’ এপ্রসঙ্গে ক্রেসপো জানান, আমাই যখন ইতালিতে খেলতাম তখন সাতটি ক্লাব খেতাবের দৌড়ে থাকত (এসি মিলান, ইন্টার মিলান, ফ্লোরেন্তিনা, ল্যাজিও, জুভেন্তাস, পারমা, রোমা)। কিন্তু এখন আর আর সেদিন নেই।’ এখন ইপিএলে সেই প্রতিদ্বন্দ্বীতা পরিলক্ষিত হয় বলে মত হার্নানের।

কেরিয়ারে কিংবদন্তি প্রাক্তন ইতালি অধিনায়ক ফ্র্যাঙ্কো বারেসির বিরুদ্ধে খেলার যে স্বপ্ন ছিল, ইতালিতে খেলার সুবাদে সেই স্বপ্ন সত্যি হয়েছে বলে মত ক্রেসপোর। তবে সেই স্বপ্নপূরণের পথ খুব একটা সহজ ছিল না বলেই মত এসি মিলান, ইন্টার মিলান, পারমা, ল্যাজিও’র মত ইতালির প্রথমসারির সমস্ত ক্লাবে খেলা এই প্রাক্তন আর্জেন্তাইনের।