মস্কো: বিশ্বকাপের শুরুতেই আইসল্যান্ডের বিরুদ্ধে নিশ্চিত জেতা ম্যাচ ড্র করে মাঠ ছাড়তে হয় আর্জেন্তিনাকে৷ মেসির পেনাল্টি মিসেই যে জয় হাতছাড়া হয় আর্জেন্তাইনদের, তা নিয়ে সংশয় নেই ফুটবলবিশ্বের৷ এলএম টেন নিজেও বোঝেন বিষয়টা৷ তাই দোষ স্বীকার করে নিয়ে কার্যত নিজের উপরেই ক্ষোভ উগড়ে দিলেন তিনি৷ ম্যাচের পর লিও বলেন, তাঁর জন্য দল জিততে না পারায় ভীষণ কষ্ট পেয়েছেন৷

আইসল্যান্ডের বিরুদ্ধে ম্যাচের ১৯ মিনিটে আগুয়েরোর গোলে ১-০ এগিয়ে যায় আর্জেন্তিনা৷ তবে তারা ব্যবধান খুবে বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেনি৷ ২৪ মিনিটের মাথায় গোল করে আইসল্যান্ডকে সমতায় ফেরান আলফ্রেড৷ প্রথমার্ধের খেলা শেষ হয় ১-১ গোলের সমতায়৷

দ্বিতীয়ার্ধে আইসল্যান্ডের রক্ষণে চিড় ধরাতে হিমশিম খায় আর্জেন্তিনা৷ আইসল্যান্ড একাধিক মার্কারে মেসিকে কার্যত বন্দি করে রাখায় আর্জেন্তিনার আক্রমণকে ভোঁতা মনে হয়৷ তবু ৬৪ মিনিটে পড়ে পাওয়া পেনাল্টিতে গোল করতে পারলে জয় নিশ্চিত করতে পারত আর্জেন্তিনা৷ মেসির পেনাল্টি শট আইসল্যান্ড গোলরক্ষক প্রতিহত করায় বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে জয় অধরা থেকে যায় আর্জেন্তাইনদের৷

ম্যাচের শেষে মেসি বলেন, ‘পেনাল্টি মিস করা অত্যন্ত কষ্টকর৷ বিশেষ করে তাতে দলের জয় হাতছাড়া হলে যন্ত্রণা আরও বেশি হয়৷ আমি পেনাল্টিতে গোল করতে পারলে ম্যাচটা জিতে মাঠ ছাড়তাম৷ কষ্ট হচ্ছিল৷ নিজের উপর রাগও হচ্ছিল৷ ’

পরক্ষণেই এলএম টেন বলেন, ‘প্রথম ম্যাচ না জিতলেও আমরা আশাহত হয়ে পড়িনি মোটেও৷ আমাদের লক্ষ্য একই আছে৷ তবে জয়টা আমাদের প্রাপ্য ছিল৷ দ্বিতীয়ার্ধে আইসল্যান্ডের ডিফেন্স ভাঙার চেষ্টা করেছি সারাক্ষণ৷ সফল হইনি৷ প্রথম ম্যাচে এক পয়েন্ট নিয়ে শুরুর কথা কখনই ভাবিনি৷ তবে এটা সবে প্রথম ম্যাচ৷ এখনও সব শেষ হয়ে যায়নি৷ এটা ঠিক যে বিশ্বকাপের সব ম্যাচগুলিতেই সমানে সমানে লড়াই হচ্ছে৷ সব দলকেই সমান শক্তিশালী দেখাচ্ছে৷ তা সত্ত্বেও বলব যে আমাদের সামনে একই রকম সুযোগ রয়েছে৷’