স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ফের ছাত্র আন্দোলনের কাছে নতিস্বীকার করতে হল কলকাতার একটি ঐতিহ্যবাহী বিশ্ববিদ্যালয়কে৷ গত বুধবার থেকে কাউন্সেলিং-এর রেজিস্ট্রেশন ফি কমানো ও মেধাতালিকা প্রকাশের দাবিতে আন্দোলন করে চলেছেন প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা৷ সেই আন্দোলনের জেরে শনিবার সকালে ভরতির মেধাতালিকা প্রকাশ করল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ৷

এই বছর প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভরতির জন্য কাউন্সেলিং-এর রেজিস্ট্রেশন ফি গত বছরের একশো টাকা থেকে বাড়িয়ে পাঁচশো টাকা করে দিয়েছে জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ড৷ বিষয়টি সামনে আসতেই প্রতিবাদে সোচ্চার হয় স্টুডেন্ট ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়ার (এসএফআই) প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিট৷ অবিলম্বে কমাতে হবে বর্ধিত রেজিস্ট্রেশন ফি৷ এই দাবিতে গত বুধবার পাঁচ ঘন্টা অবস্থান বিক্ষোভ করেন তাঁরা৷

কিন্তু, সেই বিক্ষোভে কাজ না হওয়ায় বৃহস্পতিবারেও অব্যাহত থাকে এসএফআইয়ের আন্দোলন৷ এই আন্দোলনে সামিল হয় প্রেসিডেন্সির ছাত্র সংগঠন আইসিও৷ বৃহস্পতিবার রাতভর চলে তাঁদের অবস্থান৷ ঘেরাও করে রাখা হয় রেজিস্ট্রার দেবজ্যোতি কোনার, কন্ট্রোলার, ডিন অফ সায়েন্স ও ডিন অফ আর্টসকেও৷ শুক্রবারে আরও জোরদার হয় এই আন্দোলন৷ কাউন্সেলিং-এর রেজিস্ট্রেশন ফি কমানো সঙ্গে ভরতির মেধাতালিকা প্রকাশের দাবিও তোলা হয়েছে ছাত্রদের তরফ থেকে৷

আরও পড়ুন: কলকাতা থেকে সমন পাঠানো হচ্ছে শশী থারুরকে

শুক্রবার দুপুরে বিক্ষোভরত ছাত্রদের মুখোমুখি হয়ে রেজিস্ট্রার দেবজ্যোতি কোনার স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছিলেন, কাউন্সেলিং ফি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কিছু করতে পারবে না৷ তবে, বিক্ষোভকারীদের অন্য দাবি মেধাতালিকা প্রকাশের বিষয়টি দেখার জন্য তাঁদের এক থেকে দেড় ঘন্টা সময় চেয়েছিলেন আন্দোলনকারী পড়ুয়াদের কাছে৷ তাঁকে এই সময় দিতে রাজিও হয় বিক্ষোভরত পড়ুয়ারা৷ কিন্তু, নির্দিষ্ট সময় পার হয়ে গেলে আন্দোলনকারীদের জানানো হয়, এখনই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ছাত্রদের দাবি পূরণ করতে পারবে না৷ এর জন্য সময় চাই৷ দাবি না মেটায় শুক্রবারও রাতভোর অবস্থান বিক্ষোভ চালিয়ে গিয়েছেন এসএফআই ও আইসির সদস্যরা৷

শনিবার সকালেই প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয় ভরতির মেধাতালিকা৷ ছাত্র আন্দোলনের চাপে পড়েই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাঁদের একটি দাবি মেনে নিয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে৷ যদিও, শুক্রবার রেজিস্ট্রার দেবজ্যোতি কোনার বলেছিলেন, ‘‘ওরা যে দুটো দাবি নিয়ে আন্দোলন করছে, এই দুটো দাবি প্রেসিডেন্সির এক্তিয়ারের মধ্যে পড়ে না৷ এই সম্পর্কে কোনও পদক্ষেপ প্রেসিডেন্সি নিতে পারে না৷’’ তিনি কাউন্সেলিং ফি নিয়ে আরও বলেছিলেন, ‘‘জয়েন্ট বোর্ডের একটি নিজস্ব গভর্নিং বডি রয়েছে, চেয়ারম্যান রয়েছে, ফাইন্যান্স কমিটি রয়েছে৷ সেখান থেকে তাঁরা সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ এখানে প্রেসিডেন্সি তাঁদের জোর করতে পারে না৷ তাহলে তা স্বাধীকারে হস্তক্ষেপ করা হয়ে যাবে৷ এইটা নিয়ে সত্যি আমাদের কিছু করার নেই৷’’

আরও পড়ুন: হাসিনার সঙ্গে বৈঠকে রাজনাথ

অন্যদিকে, ছাত্রদের একটি দাবি মেনে মেধাতালিকা প্রকাশ করা হলেও, এখনও অন্য দাবিটিতে অনড় বিক্ষোভকারীরা৷ এসএফআইয়ের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটির সদস্য শুভজিৎ সরকার বলেন, ‘‘আমাদের একটি দাবি মেনে মেধাতালিকা প্রকাশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয়৷ কিন্তু, আমাদের আর একটি দাবি এখনও পূরণ হয়নি৷ আর এই দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত আমরা অবস্থান বিক্ষোভ চালিয়ে যাব৷’’ বুধবার থেকে শুরু হওয়া এই আন্দোলন আজ শনিবার চার দিনে পা দিল৷ আর অবস্থান বিক্ষোভ পা দিল তিন দিনে৷ কিন্তু, যে কোনও অবস্থাতেই নিজেদের দাবিতে অনড় পড়ুয়ারা৷ মেধাতালিকা প্রকাশকে প্রেসিডেন্সি আন্দোলনের আংশিক জয় বলে মনে করছে স্টুডেন্ট ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া৷

শুভজিৎ সরকার জানিয়েছেন, এই আংশিক জয়ের পর তাঁরা জেনারেল বডি বৈঠক করে আন্দোলনের পরবর্তী পদক্ষেপ কী হবে তা নিয়ে আলোচনা করবেন৷ তারপর, কাউন্সেলিং-এর রেজিস্ট্রেশন ফি কমানোর দাবি নিয়ে কথা বলতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে দেখা করবেন৷ যদিও, শুক্রবার রেজিস্ট্রার দেবজ্যোতি কোনার বার বার বলেছিলেন, এখানে প্রেসিডেন্সির কিছু করার নেই৷ এটা জয়েন্ট বোর্ডের সিদ্ধান্ত৷

এমনকী, আন্দোলনের জেরে জয়েন্ট বোর্ডকে চিঠিও দেওয়া হয়েছিল প্রেসিডেন্সির তরফ থেকে৷ সেই চিঠির উত্তরে রাজ্য জয়েন্ট বোর্ড স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছে, এটা বোর্ডের গভর্নিং বডির সিদ্ধান্ত৷ এই মুহূর্তে তাঁরা এই বিষয়ে কিছু করতে পারবেন না৷ কিন্তু, ভবিষ্যৎ-এ ফি পুনর্বিবেচনা করার এই আবেদন তাঁরা গভর্নিং বডির কাছে উপস্থাপন করবেন৷ গভর্নিং বডি যে সিদ্ধান্ত নেবেন তা প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়কে জানিয়ে দেওয়া হবে৷