ওয়াশিংটন: আমেরিকার ইতিহাসে এই প্রথম৷ হবু মার্কিন ফাস্ট লেডি জিল বাইডেনকে হোয়াইট হাউজে স্বাগত জানালেন না বিদেয়ী ফাস্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প৷

আর মাত্র এক দিন বাকি৷ বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবে মার্কিন সাম্রাজ্যের দায়িত্বভার হাতে তুলে নেবেন নব নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন৷ এরই মধ্যে দীর্ঘ দিন ধরে চলে আসা এই প্রথায় ছেদ টানলেন মেলানিয়া৷ আনুষ্ঠানিক ভাবে স্বাগত জানালেন না জিল বাইডেনকে৷ নানা বিতর্ক সত্ত্বেও চার বছর আগে মেলানিয়াকে স্বাগত জানিয়েছিলেন মিশেল ওবামা৷ কিন্তু সেই রীতি বজায় রাখলেন না মেলানিয়া৷ প্রসঙ্গত, প্রথা ভাঙার এই খেলাটা অবশ্য প্রথম শুরু করেছিলেন খোদ ডোনাল্ড ট্রাম্প৷

প্রসঙ্গত, নির্বাচনের ফল প্রকাশ হওয়ার পর থেকেই নিজের অসন্তোষ প্রকাশ করে আসছেন ডোনাল্ট ট্রাম্প৷ ডেমোক্র্যাটদের বিরুদ্ধে সরাসরি ভোটে কারচুপির অভিযোগ তোলেন তিনি৷ এরপর তাঁরই উস্কানিতে মার্কিন ক্যাপিটল হিলে হামলা চালায় ট্রাম্প অনপগামীরা৷ সেনেটরদের ভিতরে আটকে রেখে চলে তাঁদের তাণ্ডব৷ বাধ্য হয়ে গুলি চালায় পুলিশ৷ এই ঘটনায় মৃত্যু হয় পাঁচজনের৷ লেখা হয় মার্কিন ইতিহাসের এক কালো অধ্যায়৷

তবে সোমবার বিদায়ী বার্তায় মেলানিয়া বলেন, ‘‘প্রতিটি বিষয়ে মানুষের উৎসাহিত হওয়া উচিত৷ কিন্তু হিংসার আশ্রয় নেওয়া উচিত নয়৷’’ মার্কিন ফাস্ট লেডি হিসাবে শেষ ভিডিও বার্তায় তিনি আরও বলেন, ‘‘কারও প্রতি অনুরাগী হওয়া স্বাভাবিক৷ কিন্তু মনে রাখা উচিত হিংসা কোনও কিছুর জবাব হতে পারে না৷ এটা ন্যায় সঙ্গত নয়৷’’

মার্কিন ক্যাপিটল হিলে ট্রাম্প সমর্থকদের হামলা সারা বিশ্বে আলোড় সৃষ্টি করেছিল৷ অভিযোগ, এই হামলায় প্ররোচনা জুগিয়েছিলেন খোদ ট্রাম্প৷ যার জেরে আমেরিকান সংসদের নিম্নকক্ষ হাউজ অফ রিপ্রেজেন্টেটিভে নজিরবিহীন ভাবে দ্বিতীয় বার ইমপিচড হতে হয় বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।