নয়াদিল্লি: ভারতের নাগরিকত্ব ত্যাগ করলেন মেহুল চোকসি৷ সেই সঙ্গে ছেড়ে দিলেন দেশের পাসপোর্টও৷ অ্যান্টিগুয়া সরকারের কাছে জমা দিয়ে এসেছেন পাসপোর্টও৷ দেশে যাতে ফিরে আসতে না হয় তার জন্য এমন পদক্ষেপ মেহুলের৷ এমনটাই মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল৷

এই ঘটনার জোর ধাক্কা খেল ঋণখেলাপী ব্যবসায়ী মেহুলকে ভারতে ফিরিয়ে নিয়ে আসার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সরকারের প্রয়াস৷ বছরের শুরুতে সংবাদসংস্থা এএনআইকে দেওয়া সাক্ষাতকারে প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, আজ নয় আগামীকাল এই সরকারের আমলে দেশত্যাগী ঋণখেলাপী ব্যবসায়ীদের ফিরিয়ে আনা হবেই৷ দেশের টাকা যারা চুরি করেছে কড়ায় গণ্ডায় সেই টাকা আদায় করে ছাড়বে সরকার৷

২০১৭ সালে অ্যান্টিগুয়ার নাগরিকত্ব পান ১৩ হাজার কোটি টাকা ব্যাংক জালিয়াতিতে অভিযুক্ত মেহুল চোকসি৷ আর তার কয়েকদিন পরেই পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংক কেলেঙ্কারিতে নাম জড়ায় মেহুলের। শুরু হয় তদন্ত৷ চোকসি আদালতকে জানান, তাঁর শরীরের অবস্থা ভালো নয়৷ সেই কারণে অ্যান্টিগুয়া থেকে ৪১ ঘণ্টা জার্নি করে ভারতে আসা সম্ভব নয়৷ এতক্ষণ বিমানে চলার মতো শারীরিক শক্তি তাঁর নেই। তবে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ইডির আধিকারিকদের সঙ্গে তদন্তে সবরকমের সাহায্য করতে কোনও আপত্তি তাঁর নেই৷

ইডির বিরুদ্ধে আদালতকে সঠিক তথ্য না দেওয়ার ব্যাপারে অসন্তোষ প্রকাশ করেন৷ জানান, তাঁর শারীরিক অবস্থার কথা আদালতকে বলা হয়নি৷ এমনকী তিনি ব্যাংকের সঙ্গে যোগাযোগ করে সব অর্থ ফিরিয়ে দিতে চান সেই কথাও ইডি আদালতকে বলেনি৷