লখনউ: মসজিদে ট্রেনিং ক্যাম্প পরিচালনার খবর প্রকাশ্য আসতেই চাঞ্চল্য লখনউতে৷ মেহমুদ পারাচা নামের এক মুসলিম আইনজীবী এই কর্মকাণ্ডের পিছনে রয়েছেন বলে জানা যায়৷ সেখানে মুসলিম যুবকদের অস্ত্রের লাইসেন্সের কীভাবে পাওয়া যাবে সেই প্রশিক্ষণ দেওয়া হত৷ কীভাবে লাইসেন্সের জন্য ফর্ম ভরতে হয় সেই পর্বও এখানে শেখানো হত৷ এভাবেই অন্যান্য ১২ শহরে ট্রেনিং ক্যাম্পের আয়োজন করা হয়েছিল, যার পিছনে এই মেহমুদ পারাচার হাত রয়েছে বলে জানা যাচ্ছে৷

ট্রেনিংয়ের একটি ভিডিওতে মেহমুদ জানান, বর্তমান পরিস্থিতিতে আইন ব্যবস্থা যথেষ্ট নয়৷ দেশে দলিত এবং মুসলিমরা হিংসার শিকার৷ এমতাবস্থায় তাদের নিজেদের রক্ষা নিজেদেরকেই করার ব্যবস্থা নিতে হবে৷ দেশের সংবিধান সকলকে আত্মরক্ষার অধিকার দিয়েছে বলে মত ওই আইনজীবীর৷

পারচা এই অস্ত্রের লাইসেন্স নেওয়ার ট্রেনিং নমাজ করতে আসা ব্যক্তিদের দেন৷ পরবর্তী ট্রেনিং দিল্লিতে দেওয়া হবে বলেও জানান মেহমুদ৷ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী পারচা কিছুদিন আগেই বলেছিলেন, সরকার এসসি, এসটি এবং মুসলিম সম্প্রদায়কে নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ৷ এই অবস্থায় তিনি তাদের অস্ত্র কীভাবে নেওয়া যায় সেই ফর্ম ভর্তি করার ট্রেনিং দিচ্ছেন৷

পড়ুন: পাক অধিকৃত কাশ্মীর থেকে জঙ্গি অনুপ্রবেশের চেষ্টা ব্যর্থ করল সেনা

যারা এই ফর্ম ভর্তি করতে জানে না, তাদের জন্য এই ট্রেনিং, এতে অন্যদের কী সমস্যা হচ্ছে, সেই প্রশ্ন তোলেন মেহমুদ৷ এক সংবাদ সংস্থার সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে পারচা জানান, সংবিধানের ১৯ থেকে ২১ নম্বর অনুচ্ছেদের ভিত্তিতেই তিনি এই কাজ করছেন৷ সরকার তাদের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ, আর তাই তাকে এই পদক্ষেপ নিতে হচ্ছে৷ তাই এই বিষয় নিয়ে বিবাদ-বিতর্ক কেন হচ্ছে সেই প্রশ্ন তোলেন সুপ্রিম কোর্টের এই আইনজীবী৷