নয়াদিল্লি: অসহিষ্ণুতা আর সৌহার্দ্যের মাঝে যখন একটা প্রশ্নচিহ্ন তৈরি হচ্ছে, তখনও দেশের কোনও এক কোনে এমন কোনও ঘটনা ঘটে চলেছে, যা মনে করিয়ে দেয় ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র ভারত। ধর্মের নামে যখন সবাই লড়াইতে ব্যস্ত, তখন আরা আলম মনে করিয়ে দেন জীবন-জীবিকার তাগিদে মুছে যায় ভেদাভেদ। এক মুসলিম গৃহবধূর নাম আরা আলম। ১৭ বছর ধরে শিবলিঙ্গ গড়ছেন তিনি। আর এভাবেই ছড়াচ্ছেন সম্প্রীতির বার্তা।

গত ১৭ বছর ধরে ভালোবেসেই এই কাজ করছেন তিনি। তাঁর কথায়, ‘হিন্দু মুসলিম সে কুছ নেহি হোতা হ্যায়, হাম হিন্দুস্থানি হ্যায়।’ ধর্ম নিয়ে হিংসা-হানাহানির মাঝেও নজির গড়েছেন আরা। তাঁর মতো এমন বহু শিল্পীই আছেন দেশে। ঈশ্বরপ্রদত্ত গুণ নিয়ে নিঃশব্দে গড়ে চলেছেন হাজার হাজার শিবলিঙ্গ। নিজের কাজ নিয়ে গর্বিত আরার বক্তব্য, ‘এই শিল্প ঈশ্বরপ্রদত্ত। ভালবেসেই এই কাজ করি আমরা।’

এতেই চলে তাঁর রুজি-রুটি। তাই মন থেকে এই কাজ করেন তিনি। কোনও বাধাও আসেনি এই কাজের জন্য। বর্তমান পরিস্থিতিতে আরা আলমরা আরও বেশি করে শিবলিঙ্গ বানিয়ে বুঝিয়ে দিক, ধর্মের ধজা দিয়ে জীবন কিংবা মনুষ্যত্ব শেষ করে দেওয়া যায় না।