হায়দরাবাদ: তেলুগু অভিনেতা জুনিয়ার এনটিআরকে চেনেন না। আর তাই একের পর এক ট্রোলের শিকার হতে হচ্ছে প্রিয়ঙ্কা চোপড়ার বোন অভিনেত্রী মীরা চোপড়াকে। এমনকি আসছে ধর্ষণের হুমকিও। এমনই অভিযোগ খোদ মীরার।

সম্প্রতি টুইটারে একটি প্রশ্ন উত্তর সেশনে মীরাকে তেলুগু সুপারস্টার জুনিয়র এনটিআর-এর বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হয়। তখন তিনি বলেন, “আমি চিনি না জুনিয়র এনটিআরকে। আমি তাঁর ভক্ত নই।”

এরপরে মীরাকে জিজ্ঞাসা করা হয় তাহলে তাঁর প্রিয় তেলুগু অভিনেতা কে? মীরা তখন মহেশ বাবুর নাম নেন। দুজনেই তেলুগু চলচ্চিত্র দুনিয়ার সুপারস্টার। এই ঘটনার পরেই মীরাকে সোশ্যাল মিডিয়ায় একাধিক আক্রমণ করা হয়। বিভিন্ন রকমের ট্রোলিং এর শিকার হন তিনি।এমনকি প্রিয়ঙ্কার বোনের অভিযোগ, তিনি ধর্ষণের হুমকিও পাচ্ছেন।

টুইটারের প্রশ্ন-উত্তর সেশন চলাকালীন জুনিয়র এনটিআরকে নিয়ে সেই মতামত মীরা নিজেই ডিলিট করে দেন। কিন্তু তিনি কিছু স্ক্রিনশট পোস্ট করেন, যেখানে তাঁকে এই ঘটনার জন্য গালাগাল করা হয়েছে। এমনকি মীরার মা-বাবাকে টেনে এনেও আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন অনেকে। স্লাট সেমিং এর শিকার হয়েছেন তিনি।

এই ঘটনার পরে জুনিয়র এনটিআরকে কটাক্ষ করে একটি টুইট করেন মীরা চোপড়া। তিনি লেখেন, “আপনার থেকে মহেশ বাবুকে অভিনেতা হিসেবে বেশি পছন্দ বলে আমাকে এত গালাগাল শুনতে হবে এবং নীল ছবির তারকা বলা হবে এমন আমি আশা করিনি। আমার বাবা মাকেও আপত্তিকর মন্তব্য পাঠানো হচ্ছে। এমন ভক্ত থাকার পরে আপনি কি নিজেকে সফল বলে মনে করেন? আমি আশা করি আপনি আমার এই টুইট এড়িয়ে যাবেন না।’

মীরা আরো একটি টুইট করেন, “আমি জানতাম না কারোর ভক্ত না হওয়া এত অপরাধের। আমি সমস্ত মহিলাদের বলতে চাই, আপনারা যদি জুনিয়র এনটিআর-এর ভক্ত না হন তাহলে আপনাদের গণধর্ষণ করা হতে পারে, খুন করা হতে পারে। আপনাদের মা-বাবা কেও খুন করা হতে পারে। এই ভক্তরাই তাদের আইডলের নাম বরবাদ করছে।”

হায়দরাবাদ পুলিশ এবং টুইটারের কাছে এই ধরনের হুমকি বার্তার বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করার দাবি করেছেন অভিনেত্রী মীরা চোপড়া। ন্যাশনাল কমিশন ফর ওমেন এর কাছেও সাহায্যের আবেদন করেছেন তিনি।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প