স্টাফ রিপোর্টার,কলকাতা: রাজ্য মেডিক্যাল কাউন্সিলের নির্বাচনে বেনিয়ম হয়েছে৷ বৃহস্পতিবার হাইকোর্টে অকপটে সেই কথা স্বীকার করে নিল রাজ্য মেডিক্যাল কাউন্সিলের আইনজীবী৷ নির্বাচনকে ঘিরে কাউন্সিলের কাছে যা যা অভিযোগ জমা পড়েছে এবং তার জন্য কী কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তা আগামী ১৩ অগস্টের মধ্যে হলফনামা জমা দিয়ে জানানোর নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি তপব্রোত চক্রবর্তী।

এদিন মামলার শুনানিতে আবেদনকারীর আইনজীবী কল্লোল বসু ও সুমন বন্দ্যোপাধ্যায় আদালতকে জানান, বৈজন্তি বউর সহ চারজন প্রার্থী জানতে পারেন রাজ্যের একাধিক মেডিক্যাল কলেজে নির্বাচনের জন্য যে ব্যালট পেপার পাঠানোর কথা তার বদলে ফাঁকা খাম পাঠানো হয়েছে। সেই সমস্ত ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে রিটার্নিং অফিসারদের অভিযোগ জানানো হয়৷

ওই চিকিৎসক প্রার্থীরা এও জানতে পারেন, ভোটার লিস্টে প্রায় ৪০০ ওপর নাম রয়েছে যারা চিকিৎসক শিক্ষক এবং চিকিৎসক নয়। আবার কোথাও ভোটারের নাম এবং ঠিকানা ভুলের জন্য ব্যালট পেপার ফিরে চলে গিয়েছে। স্বচ্ছ এবং নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য স্পেশাল অফিসার নিয়োগ করা হোক এই আবেদন আইনজীবীরা করেন হাইকোর্টের কাছে।

বিচারপতি এদিন ওয়েস্ট বেঙ্গল মেডিক্যাল কাউন্সিলের আইনজীবী সুব্রত ভৌমিকের কাছে জানতে চান নির্বাচন প্রক্রিয়া সঠিক ভাবে পরিচালনা হচ্ছে কি না ? কাউন্সিলের আইনজীবী জানান, বেশ কিছু কারচুপির অভিযোগ জমা পড়েছে। বিচারপতির ফের প্রশ্ন কারচুপি হয়েছে না হয়নি? আইনজীবী তখন কারচুপির করা স্বীকার করে নেন৷ এরপরই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কী কী বেনিয়ম হয়েছে, কী অভিযোগ জমা পড়েছে এবং সেগুলোর বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তা কাউন্সিলকে আগামী ১৩ অগস্টের মধ্যে আদালতে জানানোর নির্দেশ দেন বিচারপতি তপব্রোত চক্রবর্তী।

গত ২০ জুলাই থেকে নির্বচন প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে৷ চলবে ২০ অগস্ট পর্যন্ত। ৩৮ জন চিকিৎসক এই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। ভোটার ৪৯ হাজার, গণনা হবে ২৭ শে আগস্ট।